kalerkantho

বুধবার । ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ১ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

'স্বাধীনতাবিরোধীদের মেয়র হিসেবে নির্বাচিত করতে পারি না'

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২০ জানুয়ারি, ২০২০ ১৭:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'স্বাধীনতাবিরোধীদের মেয়র হিসেবে নির্বাচিত করতে পারি না'

ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে স্বাধীনতা বিরোধীরা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। আগুন সন্ত্রাসসহ তাদের আগের কর্মকাণ্ড মানুষ ভোলেনি। মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত সবুজ নগরী গড়তে যারা নির্বাচিত হবেন তারা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এই ঢাকা নগরীতে বঙ্গবন্ধু ৭ মার্চের ভাষণ দিয়েছেন। ৯৩ হাজার সৈন্য নিয়ে পাকিস্তান আত্মসমর্পণ করেছে। তাই এই নগরীতে আমরা স্বাধীনতাবিরোধীদের মেয়র হিসেবে নির্বাচিত করতে পারি না।

আজ সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে আতিক-তাপস সমর্থক গোষ্ঠী এসব কথা বলেন। এ সময় ঢাকাবাসীকে রক্ষা করতে আতিক-তাপসকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান তারা।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা বলেন, আমরা সমর্থকগোষ্ঠী আতিকুল ইসলাম ও ফজলে নূর তাপসের সঙ্গে আলোচনা করেছি। মূলত যানজটহীন, বর্জ্যমুক্ত, দূষণমুক্ত পরিষ্কার ঢাকা মহানগরী আমাদের দাবি। তারা এ বিষয়ে একমত পোষণ করেছেন। এদিকে ভোটারদের মূলবান ভোটের উপর ঢাকা মহানগরের অর্থনৈতিক, সামাজিক উন্নয়ন, গণতন্ত্র, মানবাধিকার সুরক্ষা নির্ভর করছে। আমাদের প্রত্যাশা এই নির্বাচনের মাধ্যমে ঢাকায় যানজট, বায়ু দূষণ ও সড়কের পাশে ময়লার স্তুপ থাকবে না। শিশুপার্কসহ বিনোদন কেন্দ্র, খেলার মাঠ, ফুটপাত দখল মুক্ত হবে। 

মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম ও ফজলে নূর তাপসের উদ্বৃতি দিয়ে তারা বলেন, নির্বাচিত হলে তারা ঢাকাকে সবুজ নগরী হিসেবে গড়ে তোলার পাশাপাশি প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি খেলার মাঠ দেবেন। আমরা বলেছি, মহানগরীকে সংস্কৃতিবান্ধব করে তুলতে কমিউনিটি সেন্টার, স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে ব্যবস্থা নিতে হবে, জলাবদ্ধতা নিরসনে খাল পুনরুদ্ধার করতে হবে, চারটি নদীর নাব্যতা ফিরিয়ে আনতে হবে এবং সার্কুলার নৌরুট চালু করতে হবে।

বক্তারা আরো বলেন, ইতোমধ্যে আমরা সাবেক মেয়র আতিকের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার পরিচয় পেয়েছি। তিনি সম্ভ্রান্ত পরিবারের সদস্য। এ ছাড়া তাপসের সমর্থনের প্রধান কারণ তিনি বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্য। তার বাবা মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। তাই তাকে সমর্থন করা আমাদের কর্তব্য।

সংবাদ সম্মেলনে ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুল মান্নান চৌধুরীর সভাপতিত্বে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুস। এ ছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন সাবেক কূটনৈতিক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. নিম চন্দ্র ভৌমিক, মো. রফিকুল আনোয়ার, লোকমান হোসেন, জাকির হোসেন সোহেল, শাহাদাত হোসেন ভূঁইয়া, শাহাবুদ্দিন আহমেদ মিজানুর রহমান প্রমুখ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা