kalerkantho

সোমবার। ২৭ জানুয়ারি ২০২০। ১৩ মাঘ ১৪২৬। ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

ঢাবির সান্ধ্য কোর্সের যৌক্তিকতা যাচাই কমিটির প্রতিবেদন ডিসেম্বরেই

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৪:৩০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঢাবির সান্ধ্য কোর্সের যৌক্তিকতা যাচাই কমিটির প্রতিবেদন ডিসেম্বরেই

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সান্ধ্য কোর্স নিয়ে সিদ্ধান্ত গঠিত কমিটি ডিসেম্বরেই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে প্রতিবেদন প্রকাশ করবে। গত মে মাসে এ কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তবে সম্প্রতি রাষ্ট্রপতি সান্ধ্য কোর্সের বিষয়ে বক্তব্য প্রদান করলে বিষয়টি নতুন করে আলোচনায় উঠে আসে।

আজ বৃহস্পতিবার যৌক্তিকতা যাচাই কমিটির প্রধান বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. তোফায়েল আহমদ চৌধুরী গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানান।

কমিটির সদস্যরা জানান, সান্ধ্য কোর্সের যৌক্তিকতা যাচাইয়ে ডিনদের নিয়ে ওই কমিটি করা হয়েছে। তারা সান্ধ্য কোর্স বিষয়ে মতামত দেবেন। বন্ধ করা হলে সেটি কবে থেকে, সেই বিষয়েও মতামত দেবেন তারা। ওই আলোকে ক্রমান্বয়ে সান্ধ্য কোর্স বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ডিসেম্বর মাসের মধ্যেই কমিটির রিপোর্ট জমা দেওয়া সম্ভব হবে বলে আশা করছেন কমিটির সদস্যরা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনো বিভাগ বা কোর্স হঠাৎ করে খোলা বা বন্ধ করা হয় না। এজন্য একটি প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়।

গত সোমবার (৯ ডিসেম্বর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫২তম সমাবর্তনে রাষ্ট্রপতি ও আচার্য মো. আবদুল হামিদ সভাপতির বক্তব্যে সান্ধ্য কোর্স পরিচালনার সমালোচনা করে বলেন, ‘পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় সকালে সরকারি এবং বিকালে বেসরকারি।’

এরপরই দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে সান্ধ্য কোর্স বন্ধ করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) থেকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইউজিসির পক্ষ থেকে বুধবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সান্ধ্য কোর্স বন্ধের কারণ উল্লেখ করে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘সান্ধ্য কোর্স পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈশিষ্ট্য ও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে বিধায় এই ধরনের কোর্সগুলো বন্ধ হওয়া দরকার। সেই সঙ্গে ইউজিসির অনুমোদন না নিয়েই দেশের কোনো কোনো পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন বিভাগ, প্রোগ্রাম ও ইনস্টিউট খুলে শিক্ষার্থী ভর্তি করে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে যা বাঞ্ছনীয় নয়।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা