kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জানুয়ারি ২০২০। ১৪ মাঘ ১৪২৬। ২ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

হত্যা মামলার সব আসামি খালাস

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৮:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হত্যা মামলার সব আসামি খালাস

কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী চাঁনপুর গ্রামে এগারো বছর আগে সংঘটিত ওয়েজউদ্দিন ওরফে ফটিক হত্যা মামলার সব আসামি খালাস পেয়েছেন হাইকোর্ট থেকে। এ মামলায় নিম্ন আদালতে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত একজন এবং যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত ৫ আসামির সকলকেই আপিলের রায়ে মঙ্গলবার খালাস দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথ ও বিচারপতি মুহম্মদ মাহবুব-উল ইসলামের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দিয়েছেন।

হাইকোর্টের রায়ে খালাসপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- শরীফ, আলমগীর, সোলেমান, জামিল, সাদেক ও নূর মোহাম্মদ। আসামিদের মধ্যে নিম্ন আদালতে শরীফকে মৃত্যুদণ্ড এবং অপর ৫ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। মামলাটিতে আসামিপক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট এস এম শাহজাহান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. মো. বশির উল্লাহ।

কিশোরগঞ্জ জেলার কটিয়াদী উপজেলার চাঁনপুর গ্রামের ওয়েজ উদ্দিন ওরফে ফটিক ২০০৮ সালের পহেলা অক্টোবর রাতে অপহৃত হন। ওই বছরের ৮ অক্টোবর একই এলাকার ফাইন ফুড ফিসারি থেকে তার মাথাবিহীন লাশ উদ্ধার করা হয়। ওই ঘটনায় ফটিকের ভাই মইন উদ্দিন বাদি হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

হত্যা মামলাটির আসামি আলমগীরকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। তবে রায়ের আগেই আলমগীর জামিন নিয়ে পালিয়ে যান। মামলার আরেক  আসামি নূর মোহাম্মদও পলাতক। মামলাটির তদন্তশেষে পুলিশ ছয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়। এরপর ২০১৪ সালের ২৯ জুন কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত মামলার রায় ঘোষনা করেন। তাতে এক আসামিকে মৃত্যুদণ্ড ও অন্যদের যাবজ্জীবন সাজা দেওয়া হয়।

রায় ঘোষণার পর নিম্ন আদালত থেকে এক আসামির মৃত্যুদণ্ড অনুমোদনের জন্য হাইকোর্টে ডেথ রেফারেন্স পাঠানো হয়। অন্যদিকে কারাবন্দি আসামিরা রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন। উভয় আবেদনের ওপর শুনানি শেষে মঙ্গলবার সকল আসামিকে বেকসুর খালাস ঘোষণা করে রায় দেন হাইকোর্ট।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা