kalerkantho

শনিবার । ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৯ রবিউস সানি ১৪৪১     

কী ছিল সেই ফোনালাপে?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৪:১৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কী ছিল সেই ফোনালাপে?

সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুরের টেলিফোন কথোপকথনের একটি অডিও। ইতিমধ্যে অডিও ক্লিপটি নানামহলে আলোচনার জন্ম দিয়েছে।


ফোনালাপটি শোনার পর কেউ কেউ ভিপি নুরের কঠোর সমালোচনায় মেতেছেন। গতকাল  মঙ্গলবার একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে প্রথম ভিপি নুরের ওই ফোনালাপটি ফাঁস করা হয়।

পাঠকের উদ্দেশে অডিওক্লিপটি হুবহু দেয়া হলো-

ভিপি নুর: ‘ওই যে আমি একটা কাজ পাইছেলাম ১৩ কোটি টাকার। এখন ওই কাজটা আমার এক আন্টিরই। উনি জয়েনভেনচরে একজনেরে দিয়া দেওয়াছিলো। এখন কালকে আপনি ওইটা শিওর করলে টাকা ওই আন্টিই দেবে আনে, আমার আন্টি সম্পর্ক হয়। কিন্তু অ্যাকাউন্টে যাদের লোন থাকে ওনাদের তো ইজিলি হয়, আপনিতো কাজবাজ করান। আপনি কি একটা পারফর্মেন্সের গ্যারান্টি ইয়ে করতে পারবেন?’

অপর ব্যক্তি: এখন কোন ফার্মের নামে করমু, কি করমু?’ নুরু বলেন, ‘তাহলে আমি ডিটেইলস্ লইয়া আপনার কাছে আমু আমি।

এছাড়া ওই ব্যক্তি নুরুকে বলেন, ‘আমি কিছু টাকা পয়সা উঠিয়ে পাঠাতে চাচ্ছি, আমি জানি তোমাদের টাকা পয়সা দরকার খুব। আমি হোয়াটসঅ্যাপে ফোন করছি।’

আরেক অংশে ওই ব্যক্তি বলেন, ‘আমাকে ম্যাসেজ করে যদি পাঠিয়ে দেও, তোমার পুরো নাম লাগবে, ইমেইল অ্যাড্রেস লাগবে। তাহলে আমরা এখান থেকে কিছু কিছু টাকা পয়সা কালেকশন করে তোমার কাছে পাঠায় দিবো।’

জবাবে নুর: ঠিক আছে, আপনি বলছেন খুব খুশি হইছি।

অপর ব্যক্তি: আমি ওই ইলিয়াস হোসেন আছে, ইলিয়াসের ইয়েতেও টাকা দেই। সাংবাদিক ইলিয়াস হোসেন। আমি জানি আন্দোলন করতে গেলে অনেক টাকা পয়সার প্রয়োজন হয়। ঠিক আছে নুর ভালো থেকো, সাবধানে থেকো। সবসময় খুব চোখ-কান খোলা রেখো, দোয়া করি।

এদিকে ফোনালাপটি ফাঁস হওয়ার পর কণ্ঠটি তার বলে স্বীকার করেছেন ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর।

তবে তার ফোনালাপকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে বিকৃতভাবে জাতির কাছে উপস্থাপন করা হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

তিনি বলেন, ওই কথোপকথনের অডিওটি সম্পূর্ণ প্রচার না করে আংশিকভাবে প্রচার করা হয়েছে। এটা সাংবাদিকতার নীতিবিরোধী। আমি ওই ইলেকট্রনিক মিডিয়ার বিরুদ্ধে আইনের আশ্রয় নেব। প্রতিবাদলিপি ও উকিল নোটিশ পাঠাব।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা