kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৭ রবিউস সানি ১৪৪১     

আইরিশ রাষ্ট্রপতিকে সাইদা মুনা তাসনীমের পরিচয়পত্র পেশ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ নভেম্বর, ২০১৯ ১১:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আইরিশ রাষ্ট্রপতিকে সাইদা মুনা তাসনীমের পরিচয়পত্র পেশ

যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীম গত বুধবার আয়ারল্যান্ডের রাষ্ট্রপতি মাইকেল ড্যানিয়েল হিগিন্সের নিকট আয়ারল্যান্ডে বাংলাদেশের অনাবাসিক রাষ্ট্রদূত হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁর পরিচয়পত্র পেশ করেন।

রাষ্ট্রদূত তাসনীম ডাবলিনে রাষ্ট্রপতির বাসভবনে পৌঁছার পর তাঁকে গার্ড-অব-অনার দেয়া হয়। এই ঐতিহ্যবাহী গার্ড-অব-অনার আয়ারল্যান্ডের রাষ্টপতি হিগিন্স, তাঁর স্ত্রী, আয়ারল্যান্ডের মিনিস্টার ফর ডায়াসপোরা ও ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা প্রত্যক্ষ করেন।

পরিচয়পত্র পেশকালে রাষ্ট্রদূত আয়ারল্যান্ডের রাষ্ট্রপতির কাছে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শুভেচ্ছা বার্তা পৌঁছে দেন এবং দুই দেশের সম্পর্ক আরো এগিয়ে নেয়ার বিষয়ে প্রত্যয় ব্যক্ত করেন বলে লন্ডনস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

রাষ্ট্রদূত সাইদা মুনা তাসনীম আয়ারল্যান্ডের রাষ্ট্রপতিকে আগামী বছর বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপনের বিষয়ে অবহিত করে আশা করেন আয়ারল্যান্ডেও এই উৎসব যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপন করা হবে। তিনি ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে আয়ারল্যান্ডের জনগণের নৈতিক সমর্থনের কথা উল্লেখ করে আশা করেন ২০২২ সালে বাংলাদেশ ও আয়ারল্যান্ডের কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর দু‘দেশের যৌথ উদ্যোগে পালন করা হবে।

রাষ্ট্রদূত আয়ারল্যান্ডকে ইউরোপের আইটি খাতের বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর “হাব” হিসেবে উল্লেখ করে আইটি কোম্পানিগুলো প্রতি বাংলাদেশের সফটওয়ার আউটসোর্সিং-এর সক্ষমতা, বিশেষ করে ছয় লাখ ফ্রিল্যান্স আইটি পেশাদারকে নতুনভাবে মূল্যায়ন করার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি হিগিন্স প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দেয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকার ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনন্য ভূমিকার প্রশংসা করেন। তিনি পরিবেশ সুরক্ষায় বাংলাদেশের বিভিন্ন পদক্ষেপের বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেন এবং এসডিজি‘র লক্ষ্য অর্জনে বাংলাদেশের বিভিন্ন পদক্ষেপ সর্ম্পকে জানতে চান।

তিনি বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন এবং সেন্ট পেট্রিক’স দিবস ১৭ই মার্চ একই তারিখে হওয়ায় বিষয়টি উল্লেখ করে আশা করেন আয়ারল্যন্ডেও বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন করা হবে।

পরিচয়পত্র পেশ অনুষ্ঠানে আয়ারল্যান্ডের মিনিস্টার অব স্টেট ফর দি ডায়াসপোরা এন্ড ইন্টারন্যাশনাল সিয়ারান কেনন, সেক্রেটারি জেনারেল টু প্রেসিডেন্ট আর্ট-ও-লিয়েরি, ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল অব ডিপার্টমেন্ট অব ফরেন এ্যাফেয়ার্স এন্ড ট্রেড ব্রেনডেন রজার্স এবং বাংলাদেশ হাই কমিশনের প্রথম সচিব মো. সফিউল আলম উপস্থিত ছিলেন।

রাষ্ট্রদূত আইরিশ মিনিস্টারের সাথে দ্বিপাক্ষিক বিষয়ে মতবিনিময় করেন। এছাড়া তার সম্মানে বাংলাদেশ-আইরিশ কমিউনিটি আয়োজিত এক অভ্যর্থনা অনুষ্ঠানে তিনি যোগ দেন। এসময় বাংলাদেশি-আইরিশ কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ আয়ারল্যান্ডে বাংলাদেশ হাই কমিশন লন্ডনের নিয়মিত ও উন্নত ভিসা সার্ভিসের প্রশংসা করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা