kalerkantho

বুধবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৩ রবিউস সানি     

টোয়াব নির্বাচন কাল

পর্যটনের প্রসারে কার্যকর উদ্যোগ নেওয়ার অঙ্গীকার প্রার্থীদের

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ নভেম্বর, ২০১৯ ২১:৫১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পর্যটনের প্রসারে কার্যকর উদ্যোগ নেওয়ার অঙ্গীকার প্রার্থীদের

দেশের পর্যটন খাতের শীর্ষ সংগঠন ট্যুর অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ বা টোয়াবের কার্যনির্বাহী পরিষদের ২০১৯-২১ মেয়াদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে আগামীকাল শনিবার। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে রাফিউজ্জামান ও শিবলুল আযম কোরেশীর নেতৃত্বে ‘কনশাস রিলায়েন্স ফোরাম’ এবং তৌফিক রহমানের নেতৃত্বে ‘প্রজন্ম পরিষদ’। নির্বাচিত হলে দুই পর্যটনের প্রসারে কার্যকর উদ্যোগ নেওয়ার অঙ্গীকার করেছেন দুই প্যানেলের নেতারা।

নির্বাচনের আগে রাজধানীর বিভিন্ন হোটেলে থেকে পরিচিতি সভাসহ বিভিন্ন আলোচনাসভার আয়োজন করেছে উভয় প্যানেল। দুই প্যানেল থেকেই পর্যটন খাতের উন্নয়নে বিভিন্ন উদ্যোগ নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে।

নির্বাচনের ভোটগ্রহণ আগামীকাল শনিবার রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউয়ের বিএডিসি অডিটরিয়াম, সেচ ভবনে সকাল ১০টা থেকে শুরু করে বিকেল ৩টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন হেলাল উদ্দীন। এ ছাড়া সদস্য হিসেবে আছেন মো. ইসহাকুল হোসেন সুইট এবং মো. আমজাদ হোসেন।

জার্নি প্লাসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও টোয়াবের পরিচালক তৌফিক রহমানের নেতৃত্বে ‘প্রজন্ম পরিষদ’ প্যানেলে আছেন মো. রেজাউল করিম, ফয়সাল করিম জনি, মো. তসলিম আমিন শোভন, মো. ইকবাল হোসেন, সৈয়দ সাফাত উদ্দীন আহমেদ তমাল, মো. আব্দুল্লাহ আল কাফি, চৌধুরী হাসানুজ্জামান রনি, তানভির আহমেদ, মো. বোরহান উদ্দীন, ইসরুল হোসেন ইমন, ফয়সাল সাবের মাহমুদ, জহিরুল কবীর চৌধুরী এবং অ্যাসোসিয়েট গ্রুপের আহমেদ ইউসুফ ওয়ালিদ।

এদিকে টোয়াবের বর্তমান কমিটির প্রথম সহসভাপতি ও স্ট্রেইটওয়ে ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলসের সিইও মো. রাফিউজ্জামানের নেতৃত্বে প্যানেলে আছেন শিবলুল আযম কোরেশী, আবুল কালাম আজাদ, মো. সোহানুর রহমান স্বপন, মো. জালাল উদ্দীন, মো. আনোয়ার হোসেন, মো. মনিরুজ্জামান মাসুম, মো. শাহেদ উল্লাহ, সৈয়দ তানভির আহমেদ, মো. এ রউফ, কাজী মো. নজরুল ইসলাম সুমন, মো. মনসুর আলম পারভেজ, মো. হানিফ এবং অ্যাসোসিয়েট গ্রুপ থেকে মো. সজিবুল আল রাজীব।

মো. রাফিউজ্জামান শুক্রবার কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘পর্যটনের প্রসারে সঠিকভাবে কান্ট্রি ব্র্যান্ডিং জোরদার করা, টোয়াবের স্থায়ী কার্যালয়, বিমানবন্দরে টোয়াব সদস্যদের জন্য মিট অ্যান্ড গ্রিট সেবা চালু, যুগোপযোগী প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা, ট্যুর অপারেটরদের জন্য শুল্কমুক্ত গাড়ি আমদানির সুবিধা ও পর্যটনকে অগ্রাধিকার খাত হিসেবে প্রতিষ্ঠায় সরকারের সঙ্গে দেনদরবার করা, বিদেশি পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে সেবা প্রদানে পেশাদারিত্ব বাড়ানোর উদ্যোগে নেওয়া হবে।’ তিনি বলেন, টোয়াব সদস্যাদের জন্য এক অঙ্কে ঋণসুবিধা, বহির্মুখী পর্যটনের রেমিট্যান্স বৈধভাবে পাঠানোর উদ্যোগ নেওয়া হবে।

তৌফিক রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘টোয়াবকে একটি গতিশীল ও প্রযুক্তিনির্ভর সংগঠন হিসেবে গড়ে তোলা হবে। এ জন্য প্রযুক্তিনির্ভর টোয়াব কার্যালয় তৈরি, ডিজিটাল টোয়াব ডাইরেক্টরি তৈরি এবং সব টোয়াব সদস্যের জন্য মোবাইল অ্যাপ তৈরি করা হবে। এ ছাড়া টোয়াব সদস্যাদের জন্য একটি হেল্প ডেস্ক চালু, প্রশিক্ষণ, গঠনতন্ত্র সংশোধন, পর্যটন অ্যাওয়ার্ড চালু, বহির্মুখী পর্যটনের নীতিমালা তৈরি, অন্তর্মুখী পর্যটন জোরদার করার উদ্যোগ নেওয়া হবে।’ তিনি বলেন, এটাই আমার শেষ নির্বাচন। আমরা নির্বাচিত হলে মেয়াদ শেষের ১৫ দিন আগেই পরবর্তী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা