kalerkantho

শনিবার । ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৬ রবিউস সানি               

নতুন সড়ক আইন বাস্তবায়নে আজ থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ নভেম্বর, ২০১৯ ১৩:০৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নতুন সড়ক আইন বাস্তবায়নে আজ থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান

ফাইল ফটো

নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়নে বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান শুরু করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এদিকে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের নতুন সড়ক পরিবহন আইন প্রয়োগে কোনো প্রকার বাড়াবাড়ি না হয় সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন। পাশাপাশি যত চাপ থাকুক সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়ন হবে বলেও ঘোষণা দেন তিনি।

আজ সোমবার থেকে মাঠে নামছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ভ্রাম্যমাণ আদালত, এ তথ্য আগেই জানানো হয়েছে। সচিবালয়ে সমসাময়িক ইস্যু নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে সেতুমন্ত্রীও মোবাইল কোর্টের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। পাশাপাশি কোনো প্রকার ধর্মঘট, বন্ধ থেকে বিরত থাকার জন্য অনুরোধ জানিয়ে মন্ত্রী পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের নতুন আইন মেনে চলার অনুরোধ করেছেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত নামার আগেই আজ সোমবার থেকে রাস্তায় গণপরিবহনসহ বিভিন্ন যানবাহন কম দেখা গেছে।

আজ সোমবার রাজধানীর কিছু এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হবে বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন বিআরটিএর পরিচালক এনফোর্সমেন্ট এ কে এম মাসুদুর রহমান।

এদিকে নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়নের প্রতিবাদে দেশের কয়েকটি রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে শ্রমিকরা।

সোমবার সকাল থেকে শুরু হওয়া এই ধর্মঘটে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ যাত্রীরা। যশোর, সাতক্ষীরা, খুলনা, নড়াইল রাজশাহীসহ দেশের বেশকিছু জেলায় ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন পরিবহন শ্রমিকরা। খুলনায় সকাল থেকে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন শ্রমিকরা।

পরিবহন শ্রমিকরা বলছেন, দুর্ঘটনার মামলা জামিনযোগ্যসহ সড়ক আইনের কয়েকটি ধারায় সংশোধন চান তারা।

নড়াইল-যশোর, নড়াইল-লোহাগড়াসহ অভ্যন্তরীণ পাঁচটি রুটে কোনো ঘোষণা ছাড়াই বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন শ্রমিকরা। রবিবার সন্ধ্যা থেকে বাস চলাচল বন্ধ রেখেছেন শ্রমিকরা।

সাতক্ষীরার সকল রুটে সোমবার সকাল থেকে শুরু হওয়া এই ধর্মঘটে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ যাত্রীরা। এদিকে সাতক্ষীরার সব রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়ায় হাজার হাজার যাত্রী দুর্ভোগে পড়েছেন। তারা অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে নছিমন, করিমন ও ইজিবাইক যোগে গন্তব্যস্থলে পৌঁছানোর চেষ্টা করছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা