kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৫ রবিউস সানি          

পররাষ্ট্র মন্ত্রীর মন্তব্যে আমরা হতবাক ও ক্ষুব্ধ : নারীপক্ষ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ নভেম্বর, ২০১৯ ২২:৩০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পররাষ্ট্র মন্ত্রীর মন্তব্যে আমরা হতবাক ও ক্ষুব্ধ : নারীপক্ষ

সৌদি আরব থেকে নারীকর্মীদের মৃতদেহ ফেরত আসা প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন এর একটি বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে নারী অধিকার সংগঠন নারীপক্ষ। গণমাধ্যমে একটি প্রতিবাদ বিবৃতি দিয়ে সংগঠনটি এই প্রতিবাদ জানায়। এখানে নারীপক্ষের প্রতিবাদ বিবৃতিটি হুবহু তুলে ধরা হলো...

“সম্প্রতি বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন সৌদি আরব থেকে নারীকর্মীদের মৃতদেহ ফেরত আসা প্রসঙ্গে মন্তব্য করেছেন যে, “সৌদি আরবে কর্মরত ২ লাখ ২০ হাজার নারীর মধ্যে ৫৩ নারীর মরদেহ ফেরেছে, যা খুবই নগণ্য। সেখান থেকে নির্যাতনের শিকার হয়ে ফিরে আসা নারীর সংখ্যা মাত্র ৮ হাজার, সংখ্যার দিক থেকে যা খুবই ছোট। তারা দূতাবাসের শেল্টারহোমে অভিযোগ না করে দেশে এসে অত্যাচারের কথা বলেন।”  
পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এহেন অর্বাচীন, স্থুল এবং অপমানজনক বক্তব্যে নারীপক্ষ হতবাক ও ক্ষুব্ধ। নারীপক্ষ’র দাবি, পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে তার এই বক্তব্যের জন্য অনতিবিলম্বে ক্ষমা চাইতে হবে।

আমরা মাননীয় মন্ত্রীমহোদয়কে স্মরণ করিয়ে দিতে চাই, কোনো সংখ্যার উপর মত্যু বা নির্যাতনের ঘটনার গুরুত্ব নির্ভর করে না। নাগরিকদের জীবন ধারণের উপযোগী নিরাপদ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করার দায়িত্ব সরকারের। দেশে হোক বা বিদেশে, সর্বত্রই প্রতিটি নাগরিকের নিরাপত্তা বিধানের দায়িত্ব অবশ্যই সরকারকে নিতে হবে।

নারীপক্ষ’র দাবি, একজন নারীকেও বা কোনো অভিবাসী কর্মীকেই যেন লাশ হয়ে বা নির্যাতন-নিপীড়নের শিকার হয়ে দেশে ফিরে আসতে না হয়। এরজন্য সরকারি, বেসরকারি- উভয় ক্ষেত্রে বিদেশে কর্মী পাঠানোর সুনির্দিষ্ট ও নারীবান্ধব নীতিমালা প্রণয়ন এবং এর যথাযথ বাস্তবায়ন করতে হবে। সকল প্রবাসী কর্মীর জীবনের নিরাপত্তা বিধান করতে হবে। অভিবাসী কর্মী যাতে সহজেই নিজ দেশীয় দূতাবাসের সাথে যোগাযোগ করতে পারে তার ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে এবং সমস্যা সমাধানে অতি দ্রুত পদক্ষেপ নিতে হবে।”

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা