kalerkantho

বুধবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৩ রবিউস সানি     

‘এরিক-বিদিশাকে আটকে রাখার অভিযোগ মিথ্যা’

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ নভেম্বর, ২০১৯ ১৮:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘এরিক-বিদিশাকে আটকে রাখার অভিযোগ মিথ্যা’

প্রয়াত সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সাবেক স্ত্রী বিদিশা এবং ছেলে এরিককে আটকে রাখার অভিযোগ সত্য নয় বলে জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। শনিবার সকালে বনানীর দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই দাবি করেন। তিনি বলেন, সময় মতো সবকিছু জাতির সামনে পরিষ্কার করা হবে।

এর আগে বিদিশা সিদ্দিক অভিযোগ করেন, শুক্রবার সকাল থেকে কাউকেই তার সঙ্গে দেখা করতে দিচ্ছেন না বাড়ির পাহারায় থাকা নিরাপত্তা রক্ষীরা। এমনকি প্রয়োজনীয় ওষুধও আনতে দেয়া হচ্ছে না।

এদিকে এরশাদপুত্র এরিক গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা বেরোতে চাচ্ছি। লোকজনকে গুলশানের প্রেসিডেন্ট পার্কের বাসায় ঢুকতে দিচ্ছে না।

বিদিশা বলেন, গতকাল এরিক আমাকে ফোন করেছে, বলছে, মা আমি আর সহ্য করতে পারছি না, থাকতে পারছি না, মা তুমি আমাকে বাঁচাও, আমাকে এখান থেকে বের করো। তাড়াতাড়ি আসো। তারপর কালকে আমি নিজেই চলে এসেছি। এরিক আমাকে জড়িয়ে ধরে কেঁদে ফেলেছে। আমি বললাম কি হয়েছে তোমার? তখন ও বললো যে, আমাকে চাচা বলেছে তুমি তোমার মার সাথে যোগাযোগ করতে পারবা না, মার সাথে কথা বলতে পারবা না। বলতে গেলে আমি ও আমার সন্তান দুজনেই প্রেসিডেন্ট পার্কের বাসায় অবরুদ্ধ অবস্থায়।

বিদিশার ঘনিষ্ট একজন বলেন, ম্যাডামের যে ব্যক্তিগত সহকারী আছে, তার কাছে ওষুধপত্র থাকে, তাকেও ঢুকতে দেয়া হয়নি। এ বিষয়ে জিএম কাদেরের কাছে জানতে চাইলে গতকাল তিনি কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

বিদিশা গতকাল তার ফেসবুক পেজেও এক পোস্টে জানিয়েছেন, এরিককে নাকি খাবারও খেতে দেওয়া হচ্ছিলো না বহুদিন ধরেই। এরিক বিদিশার কাছে অভিযোগ করেছেন, তাকে নাকি শুধু দুপুরে এক বেলা খাবার খেতে দেওয়া হতো। এবং এরশাদ মারা যাওয়ার আগে যেসব মিনারেল ওয়াটার এবং বিস্কুট রেখে গিয়েছিলেন সেসব খেয়েই খিদে মেটাতেন এরিক।

আরও পড়ুন: ‘এরশাদের মৃত্যুর পর থেকে একবেলা খেতে দেয়া হয় এরিককে’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা