kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

সংবাদ সম্মেলনে মনিরুল ইসলাম

দ্বিমত করলে, সালাম না দিলে, কেউ হাসলেও পেটাতেন তারা!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ১৬:৫৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দ্বিমত করলে, সালাম না দিলে, কেউ হাসলেও পেটাতেন তারা!

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের হত্যায় যারা জড়িত তারা খুব তুচ্ছ কারণেই শিক্ষার্থীদের পেটাতেন বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম। এমন ঘটনা উল্লেখ করতে গিয়ে তিনি জানিয়েছেন, হত্যাকারীদের সঙ্গে কেউ কোনো ইস্যুতে দ্বিমত করলে, সালাম না দিলে কিংবা তাদের সামনে কেউ হেসে দিলে তারা তাদের নির্যাতন করতেন।

বুধবার (১৩ নভেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে মিন্টো রোডে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান তিনি।

অভিযুক্তদের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের কথা জানাতে গিয়ে তিনি বলেন, তারা র‍্যাগিংয়ের নামে নতুনদের আতঙ্কিত রাখতে এসব কাজ করেন। এসব বিষয়ে আমরা আগে কোনো অভিযোগ পাইনি। তবে তদন্তে একজন সাক্ষী বলেছেন যে তিনি একজনকে সালাম দেননি বলে তাকে পেটানো হয়েছে। র‍্যাগিংয়ের নামে উচ্ছৃঙ্খল কর্মকাণ্ডের অভ্যস্ততার অংশ হিসেবেই আবরার হত্যাকাণ্ডটি সংঘটিত হয়েছে বলে আমরা মনে করছি। হল প্রশাসন ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আগে থেকে মনিটরিং করলে এমন ঘটনা না-ও ঘটতে পারত। এটা তাদেরই মনিটর করার কথা।

এসময় এই হত্যাকাণ্ডে জড়িত ২৫ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি। অভিযুক্তদের সর্বোচ্চ শাস্তির আশা প্রকাশ করে মনিরুল ইসলাম বলেন, আমরা যেভাবে চার্জশিট প্রস্তুত করেছি আশা করছি সবার সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা