kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

একাদশ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করায় মেননকে নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:৪৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



একাদশ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করায় মেননকে নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

রাশেদ খান মেনন। ফাইল ছবি

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণকে প্রশ্নবিদ্ধ করায় ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেননের সমালোচনা করেছেন ১৪ দলের বেশ কয়েকটি শরিক দলের নেতারা। তাঁরা সংসদ থেকে মেনন ও তাঁর দলের সংসদ সদস্যদের পদত্যাগ করার পরামর্শ দিয়েছেন। তবে মেননের বক্তব্যকে সমর্থনও করেছেন একাধিক নেতা।

গতকাল শনিবার বরিশালে ওয়ার্কার্স পার্টির এক অনুষ্ঠানে রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমিও নির্বাচিত হয়েছি। তার পরও আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি, ওই নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি। এমনকি পরবর্তীতে উপজেলা এবং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও ভোট দিতে পারেনি দেশের মানুষ।’

জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার বলেন, ‘জনগণ ভোট দিয়েছে। আমরা ভোটের মাধ্যমেই সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছি। রাশেদ খান মেনন যা বলেছেন তা উনার ব্যক্তিগত বক্তব্য।’

তরীকত ফেডারশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারি কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘উনি ও উনার দলের সংসদ সদস্যদের একযোগে পদত্যাগ করা উচিত। উনারা জাতীয় সংসদে থাকার নৈতিক ভিত্তি হারিয়েছেন। ১৪ দলে থেকে এসব কথা বলার আগে উনাদের উচিত ছিল জোট থেকে পদত্যাগ করা। উনার এসব কথার উদ্দেশ্য কী? এসব কথায় তো বিএনপি-জামায়াত লাভবান হবে।’

ন্যাপের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন বলেন, ‘যাঁরা এই নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন তাঁদের মুখে এমন কথা মানায় না। এসব কথা উনি বলার জন্য বলেছেন। তিনি হয়তো সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে চান। উনি পদত্যাগ করে এসব বললে তখন ঠিক মনে করতাম।’

রাশেদ খান মেননের বক্তবে্যর সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন বাংলাদেশ জাসদের সভাপতি শরিফ নুরুল আম্বিয়া। তিনি কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা এত দিন ধরে যে কথাগুলো বলে আসছিলাম, মেননের বক্তব্যে সে বক্তব্যেরই প্রতিধ্বনি দেখতে পাচ্ছি। উনি নতুন কোনো কথা বলেননি। যাঁরা এর সমালোচনা করছেন তাঁরাও জানেন, ৩০ ডিসেম্বরের ভোট আগের রাতেই হয়ে গেছে। এখন ভোটের অধিকার ফেরতের রাজনীতিই সবার করা উচিত।’

জানতে চাইলে সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা