kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

হাইকোর্ট বিভাগে বিচারপতি নিয়োগের গুঞ্জন

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি-সম্পাদকের পাল্টাপাল্টি বক্তব্য

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ অক্টোবর, ২০১৯ ০২:১৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি-সম্পাদকের পাল্টাপাল্টি বক্তব্য

হাইকোর্ট বিভাগে বিচারপতি নিয়োগের গুঞ্জন ওঠার পর এ নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট এ এম আমিন উদ্দিন ও সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন পাল্টাপাল্টি বক্তব্য দিয়েছেন।

অ্যাডভোকেট এ এম আমিন উদ্দিন বলেছেন, সংবিধান অনুসারে বিচারপতি নিয়োগ হতে হবে। আর ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, এ বিষয়ে হাইকোর্টের রায়ের আলোকে করা নীতিমালা করে সে অনুযায়ী বিচারপতি নিয়োগ করতে হবে।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী মিলনায়তনে বৃহস্পতিবার দুপুরে পৃথকভাবে সাংবাদিকদের কাছে প্রতিক্রিয়া জানান দুই আইনজীবী নেতা। প্রথমে সম্পাদকের নেতৃত্বে সংবাদ সম্মেলন করা হয় এবং পরে একই স্থানে সভাপতি বক্তব্য দেন।

অ্যাডভোকেট এ এম আমিন উদ্দিন বলেন, সংবিধানের ৯৫ অনুচ্ছেদ অনুসারে প্রধান বিচারপতির সঙ্গে পরামর্শ করে রাষ্ট্রপতি দুই বছরের জন্য অতিরিক্ত বিচারপতি নিয়োগ দেবেন। সংবিধানের ৯৮ অনুচ্ছেদ অনুসারে দুই বছরের জন্য অতিরিক্ত বিচারক নিযুক্ত করতে পারবেন। আমরা আশা করছি, ভবিষ্যতে সংবিধানের ৯৫ ও ৯৮ অনুসরণ এবং হাইকোর্টের রায়ের আলোকে নিয়োগ হবে।

সংবিধানের বাইরে কিছু করার সুযোগ নেই। সংবিধানে স্পষ্ট আছে এখানে কি করতে হবে। সংবিধানেই যোগ্যতা নির্ধারণ করা আছে। একমাত্র ম্যান্ডেট হচ্ছে প্রধান বিচারপতির সঙ্গে পরামর্শ করতে হবে।

ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, সংবিধানের ৯৫(২) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী হাইকোর্ট বিভাগের ২০১৭ সালের ১৩ এপ্রিলের রায়ের আলোকে বিচারক নিয়োগের নীতিমালা প্রণয়ন করে বিচারপতি নিয়োগ দিতে হবে।

তিনি বলেন, রায়ের ৭ দফা নির্দেশনা অনুযায়ী মেধাবী, পেশাগতভাবে দক্ষ, সুক্ষ বিচারিক শক্তি ও ন্যায়পরায়ণতা সম্পন্নদেরকেই বিচারক নিয়োগ দিতে হবে। সকল যোগ্যতা সম্পন্ন ইচ্ছুক প্রার্থীদের সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদনের সুযোগ দিতে হবে। শুধুমাত্র রাজনৈতিক আনুগত্যের কারণে কাউকে সুপ্রিম কোর্টের বিচারক নিয়োগ করা কোনোভাবেই বাঞ্চনীয় নয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা