kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ক্লিফটন গ্রুপের গুদাম থেকে বিপুল পরিমাণ বন্ড পণ্য আটক

►অবৈধভাবে খোলাবাজারে বিক্রি ►সাড়ে চার কোটি টাকার শুল্ক ফাঁকি ►২০৫ টন কাপড়ের এক্সেসরিজ ও কাঁচামাল জব্দ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৭ অক্টোবর, ২০১৯ ১৩:১২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ক্লিফটন গ্রুপের গুদাম থেকে বিপুল পরিমাণ বন্ড পণ্য আটক

বন্ড সুবিধায় এনে অবৈধভাবে খোলাবাজারে বিক্রির আগে তিনটি গুদাম থেকে বিপুল পরিমাণ তৈরি পোশাক শিল্পের কাঁচামাল আটক করেছে চট্টগ্রাম বন্ড কমিশনারেট। চট্টগ্রামের আমিন জুট মিলের গুদাম ভাড়া নিয়ে দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে এই অবৈধ কাজটি করছিল চট্টগ্রামের শীর্ষ শিল্প প্রতিষ্ঠান ক্লিফটন গ্রুপ। গত বুধবারই সেই অবৈধ কাজটি হাতেনাতে ধরা পড়েছে। 

বন্ড কমিশনারেটের দল এসব গুদাম থেকে ২০৫ মেট্রিক টন গার্মেন্ট কাঁচামাল আটক করেছে। এগুলোতে সাড়ে চার কোটি টাকার শুল্ক ফাঁকি দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। 

উল্লেখ্য, ক্লিফটন গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হচ্ছেন বিজিএমইএ নেতা কামাল উদ্দিন চৌধুরী। যিনি বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য। মিরসরাই আসন থেকে সংসদ সদস্য হিসেবে একাধিকবার বিএনপির মনোনয়ন চেয়েছিলেন। 

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম বন্ড কমিশনারেট মোহাম্মদ আজিজুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, বিগত দুই বছর ধরে আমিন জুট মিলের গুদাম ভাড়া নিয়ে এই অবৈধ কাজটি করে আসছিল চট্টগ্রামের ক্লিফটন গ্রুপ। আমাদের কাছে তথ্য ছিল। কিন্তু এবার হাতেনাতে ধরা পড়লো। বন্ড সুবিধায় আনা পণ্য এসব গুদাম থেকে বের করার সময় হাতেনাতে একটি কাভার্ড ভ্যানও আটক করা হয়।

তিনি বলেন, আটকের পর তিনটি গুদামে থাকা পণ্য কায়িক পরীক্ষা করে ২০৫ টন কাপড়ের এক্সেসরিজ ও কাঁচামাল পাওয়া গেছে। এতে অন্তত সাড়ে চার কোটি টাকার শুল্ক ফাঁকি দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এরপর তিনটি গুদাম সিলগালা করে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম বন্ড কমিশনারেটের একটি দল গত ১৫ অক্টোবর সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের আতুরার ডিপো সংলগ্ন আমিন জুট মিলের তিনটি গুদামে অভিযান চালায়। অভিযানে দেখা যায়, এসব গুদাম থেকে গার্মেন্ট তৈরির কাঁচামাল কাভার্ড ভ্যানে তোলা হচ্ছিল। বন্ড কমিশনারেটের সহকারী কমিশনারের নেতৃত্বে এই পণ্য অবৈধ কিনা যাচাই করতে গেলে বিষয়টি ধরা পড়ে। পরে ১৫ সদস্যের সেই বন্ড কমিশনারেটের দলটি একে একে তিনটি গুদামে অভিযান চালিয়ে বিপুল পণ্য আটক করে। পরে যাচাই করে দেখা যায়, ক্লিফটন গ্রুপের নামে বন্ড সুবিধায় এসব পণ্য আমদানি করা হয়েছে। 

এরপর গত ১৬ অক্টোবর দিনভর কায়িক পরীক্ষার পর গুদামে প্রায় ২০৫ মেট্রিক টন কাপড়ের এক্সেসরিজ পাওয়া যায়। যার বিপরীতে প্রাথমিকভাবে প্রায় সাড়ে ৪ কোটি টাকার শুল্ক ফাঁকি উদঘাটন করা হয়েছে। আটক পণ্যের মধ্যে রয়েছে ইলাস্টিক প্রায় ১৩১ মেট্রিক টন, সুইং থ্রেড প্রায় ২৫ মেট্রিক টন এবং অন্যান্য এক্সেসরিজ প্রায় ৪৯ মেট্রিক টন (যেমন ট্যাগ পিন, ইন্টারলাইনিং, গাম টেপ, হ্যাংগার, সাইজার, ফোল্ডেড পেপার বক্স, প্লাস্টিক রিং স্লাইডার, রাবার ইত্যাদি)।  

বন্ড কর্তৃপক্ষ বলছে, তিনটি গুদাম কাস্টমস বন্ড কমিশনারেটের অনুমোদন নেই। এরপরও অবৈধভাবে অপসারণের উদ্দেশ্যে বন্ড সুবিধায় আমদানিকৃত মালামাল মজুদ করেছে ক্লিফটন গ্রুপ। কায়িক পরীক্ষার সময় অবৈধ অপসারণের সময় পণ্য বোঝাইকৃত একটি কাভার্ড ভ্যানও আটক করা হয়েছে। পণ্যগুলো আটক করে তিনটি গুদাম সীলগালা করা হয়েছে এবং প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে আইনানুগ পদেক্ষপ নিচ্ছে বন্ড কমিশনারেট। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা