kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

৫৮৫ বোতল ফেনসিডিলসহ ২ কারবারি র‍্যাবের জালে

অনলাইন ডেস্ক   

১৩ অক্টোবর, ২০১৯ ১৭:২৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৫৮৫ বোতল ফেনসিডিলসহ ২ কারবারি র‍্যাবের জালে

মাদকমুক্ত দেশ গড়ার লক্ষ্যে চলছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন এর মাদকবিরোধী অভিযান। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব ১ গোয়েন্দা সূত্রে জানতে পারে, বেশ কিছুদিন ধরে একটি মাদক কারবারি চক্র দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে কৌশলে মাদক রাজধানী ঢাকাসহ আশপাশের জেলায় নিয়ে আসছে। গোপন সূত্রে আরো জানা যায়, মাদক কারবারি চক্রটি ফেনসিডিলের একটি বড় চালান চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সীমান্ত এলাকা থেকে পরিবহনযোগে রাজধানীর আশুলিয়ার উদ্দেশে আসছে। এরই প্রেক্ষিতে তাদের গ্রেপ্তারের লক্ষ্যে র‌্যাব ১ গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করে এবং চালানটির গতিবিধি অনুসরণ করে অবস্থান নেয়।

 
গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে মাদকের চালানটির অবস্থান শনাক্ত করে আজ ভোর পৌনে ৬টার সময় আশুলিয়া থানাধীন নাভানা সিএনজি স্টেশন এর বিপরীত পাশে বাইপাইল মোড়ের পশ্চিম দিকে অভিযান পরিচালনা করে র‍্যাব ১, ক্রাইম প্রিভেনশন কম্পানি ২ এর ভারপ্রাপ্ত কম্পানি কমান্ডার সহকারী পুলিশ সুপার মো. সালাউদ্দিনের নেতৃত্বে র‍্যাবের একটি বিশেষ আভিযানিক দল। আটক করা হয় আন্তজেলা মাদক কারবারি চক্রের সদস্য মো. হারুন অর রশিদ ওরফে হানিফ উদ্দিন (৪০) ও মো. মোতালেব হোসেন (৩৫)-কে। 

এ সময় তাদের চালিত পিকআপ থেকে ৫৮৫ বোতল ফেনসিডিল, ১০০ ক্যান কলা, ৩টি মোবাইল ফোন, নগদ ২৩,৭৭০/- টাকা ও ২টি চেক বই উদ্ধার করা হয় এবং মাদক পরিবহনে ব্যবহৃত পিকআপটি জব্দ করা হয়।  

আসামিরা জানায়, তারা একটি সংঘবদ্ধ মাদক কারবারি চক্রের সক্রিয় সদস্য। তারা চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা দিয়ে অবৈধভাবে চোরাচালানের মাধ্যমে ফেনসিডিল নিয়ে আসে। পরবর্তীতে ফেনসিডিলের চালানগুলো বিভিন্ন পণ্যবাহী পরিবহনে করে ঢাকাসহ সারা দেশে মাদক কারবারিদের নিকট সরবরাহ করে। এই চক্রের অন্যতম সদস্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার জনৈক মাদক কারবারি। সে অবৈধভাবে ফেনসিডিলের চালান দেশে নিয়ে এসে তার সহযোগী আটক আসামি হানিফ ও মোতালেব এর মাধ্যমে ঢাকা ও আশপাশের এলাকায় নিয়ে এই সিন্ডিকেটের অন্যান্য সদস্যদের নিকট খুচরা ও পাইকারিমূল্যে বিক্রয় করে। 

উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্য এবং গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন বলে র‍্যাব সূত্র জানায়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা