kalerkantho

বুধবার । ২৩ অক্টোবর ২০১৯। ৭ কাতির্ক ১৪২৬। ২৩ সফর ১৪৪১                 

সভায় বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে দেশবাসীর উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা আরো বেড়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ অক্টোবর, ২০১৯ ২০:০৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে দেশবাসীর উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা আরো বেড়েছে

বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির ঢাকার মহানগর কমিটির জরুরি সভায় নেতৃবৃন্দ বলেছেন, বাংলাদেশ-ভারত ৭ দফা চুক্তি ও সমঝোতা নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত বক্তব্যে দেশবাসী আশ্বস্ত হতে পারেনি। বরং জাতীয় নিরাপত্তাসহ দেশের ভবিষ্যত নিয়ে জনগণের উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা আরো বৃদ্ধি পেয়েছে। জনগণকে এ বিষয়ে সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন নেতৃবৃন্দ।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ওই সভায় সভাপতিত্ব করেন পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, ঢাকা মহানগর কমিটির সভাপতি আকবর খান।

সভায় বক্তব্য রাখেন মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন মোশতাক, ইমরান হোসেন, অ্যাপোলো জামালী, স্নিগ্ধা সুলতানা ইভা, হুমায়ুন মুজিব, জোনায়েদ হোসেন প্রমুখ।

সভায় পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেন, বাংলাদেশের উপকূলে ভারতের পর্যবেক্ষণ রাডার বসানোর যৌক্তিকতা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে কিছুই উল্লেখ করেননি। ভারতের এই পর্যবেক্ষণ রাডার স্থাপনার মধ্য দিয়ে সমুদ্র সীমাসহ বাংলাদেশের নিরাপত্তা যে নানাদিক থেকেই বিপন্ন হবে তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

তিনি বলেন, যখন বলা হচ্ছে ভারতের সাথে বাংলাদেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক যখন সর্বোচ্চ পর্যায়ে, তখনও রোহিঙ্গাদের মায়ানমারে নিরাপদ প্রত্যাবাসনের ব্যাপারে বাংলাদেশের পাশে দাঁড়াতে ভারতের অঙ্গীকার নেই। বরং এই ইস্যুতে মোদি সরকার মায়ানমারের পাশেই আছে।

সভায় ছাত্রলীগের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের শিকার বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদের ফেসবুক স্ট্যাটাস বাস্তবে বাংলাদেশের মানুষের মনের কথাকেই তুলে ধরেছে। সভায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শান্তি, নিরাপত্তা ও শিক্ষার গণতান্ত্রিক পরিবেশ নিশ্চিত করতে ছাত্রলীগকে নিরস্ত্র করে তাদের সন্ত্রাস, মাস্তানী, গুন্ডামী বন্ধ করার আহ্বান জানানো হয়।

ভারতের সাথে অসম দেশবিরোধী চুক্তি বাতিল এবং আবরার হত্যার দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবিতে আগামী ১৩ অক্টোবর বামজোট আহুত বিক্ষোভ সফল করার আহ্বান জানানো হয়। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা