kalerkantho

মঙ্গলবার । ২২ অক্টোবর ২০১৯। ৬ কাতির্ক ১৪২৬। ২২ সফর ১৪৪১              

রাজধানীতে দুই নারীকে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০২:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজধানীতে দুই নারীকে হত্যা

প্রতীকী ছবি

রাজধানীর কদমতলী ও মুগদা এলাকায় দুই নারীকে হত্যা করা হয়েছে। এর মধ্যে কদমতলীতে নিহত নারীর নাম পায়েল (১৮)। এ ঘটনায় তার স্বামী রাশেদ (২৫)কে আটক করেছে পুলিশ। মুগদা এলাকার নারীর পরিচয় জানা যায়নি।

কদমতলী থানাধীন হাইস্কুল রোড স্বামী-স্ত্রী দাম্পত্য কলহের জের ধরে পায়েলকে গতকাল শনিবার সকালে মারধর করে তার স্বামী। পরে গুরুতর আহত পায়েলকে তার পরিবারের সদস্যরা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে গেলে সকাল ১০টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ময়নাতদন্তের জন্য তার লাশ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। পায়েলের মুখমন্ডল ও গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। 

কদমতলী থানার সাব-ইন্সপেক্টর মো. শহিদুল্লাহ মামুন বলেন, ‘এ ঘটনায় তার স্বামীকে আটক করা হয়েছে।’ 

পায়েলের মা মরিয়ম জানান, তারা প্রেম করে পালিয়ে বিয়ে করেছিল। পরে শ্যামপুর হাইস্কুল রোড এলাকায় থাকত। পায়েল সেলাইয়ের কাজ করত, তার স্বামী রাসেদ কারখানার শ্রমিক ছিল। পরে সংবাদ পাই তার স্বামী তাকে মারধর করে হত্যা করেছে। দুই ভাই এক বোনের মধ্যে সে ছিল দ্বিতীয়।

অন্যদিকে রাজধানীর মুগদার মদিনাবাগ এলাকায় আব্দুল জব্বারের বাড়ির দ্বিতীয় তলা থেকে গত শুক্রবার রাতে অজ্ঞাত (৩৮) নারীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

মুগদা থানার সাব-ইন্সপেক্টর আকরামুল ইসলাম জানান, বাড়ির লোকজনের কাছ থেকে জানা গেছে, ওই মহিলা যে রুমটিতে বসবাস করতেন সেই রুমটি বাইরে দিয়ে তালা বন্ধ অবস্থায় ছিল। ওই রুম থেকে সিঁড়ি গড়িয়ে পানি বের হচ্ছিল। 

পরে বাড়িওয়ালা তালা খোলার লোক দিয়ে তালা খুলে ভেতরে দেখতে পান, পানির কল খোলা, আর নারীটি মেঝেতে পরে আছে। বাড়ির মালিক জানিয়েছে, দেড় মাস আগে বাসা ভাড়া দিয়েছেন, তার সঠিক নাম ঠিকানা বলতে পারেননি। ভাড়া দেওয়ার সময় তাদের তথ্য রাখেননি। 

পুলিশের ধারণা অজ্ঞাত কেউ গত ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে ২০ সেপ্টেম্বর রাত পর্যন্ত সময়ে হত্যা করে বাইরে থেকে তলা বন্ধ করে চলে যেতে পারে। পুলিশের ধারণা তাকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করা হয়েছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা