kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ১৭ অক্টোবর ২০১৯। ১ কাতির্ক ১৪২৬। ১৭ সফর ১৪৪১       

ডাকসু ভেঙে দিয়ে পুনঃনির্বাচনের দাবি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৫:১৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ডাকসু ভেঙে দিয়ে পুনঃনির্বাচনের দাবি

দুর্নীতির অভিযোগে ছাত্রলীগের নেতৃত্ব থেকে গোলাম রাব্বানীকে  সরিয়ে দেওয়ার প্রেক্ষাপটে ডাকসু ভেঙে দেওয়ার দাবি জানিয়েছে বামপন্থি ছাত্র সংগঠনগুলোর জোট প্রগতিশীল ছাত্রজোট। একইসঙ্গে পুনঃনির্বাচনের দাবি জানিয়েছে জোটটি। 

আজ সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান জোটের নেতা ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি মেহেদী হাসান নোবেল।

লিখিত বক্তব্যে নোবেল বলেন, দুনীর্তির অভিযোগ মাথায় নিয়ে নিজ সংগঠন থেকে অব্যাহতি পাওয়া কোনো ব্যক্তি ডাকসুর কোনো পদে আর থাকতে পারেন না। তাই বর্তমান বাস্তবতায় দাঁড়িয়ে ডাকসুর অতীত-ঐতিহ্য সমুন্নত রাখার জন্য অবিলম্বে এই ডাকসু অবৈধ ঘোষণা করে পুনঃনির্বাচনের দাবি আমরা জানাচ্ছি।

গত মার্চে অনুষ্ঠিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ নির্বাচনে ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন রাব্বানী। ভিপি পদে নির্বাচিত হন কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের নেতা ভিপি নুরুল হক নুর।

সংবাদ সম্মেলন থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্নীতির বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে সমর্থন জানানো হয়।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের একাংশের সভাপতি ইমরান হাবিব রুমন ও সাধারণ সম্পাদক রাশেদ শাহরিয়ার, ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক অনিক রায় ও বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি ইকবাল কবির এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

নানা অভিয়মের অভিযোগে শনিবার আওয়ামী লীগের সভায় ছাত্রলীগের শীর্ষ পদ থেকে অপসারণ করা হয় শোভন-রাব্বানীকে।

গতকাল শনিবার গণভবনে শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় শোভন-রাব্বানীকে সরিয়ে দেওয়া হয়। একইসঙ্গে সিনিয়র সহ-সভাপতি আল নাহিয়ান জয়কে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এবং সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক করা হয়। আর বর্তমান নেতৃত্বকেপদত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়।

চাঁদাবাজির অভিযোগ ওঠায় ডাকসুর মনোনীত হিসেবে সিনেটে শোভনের প্রতিনিধিত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয় সংবাদ সম্মেলনে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা