kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সংসদে শূন্য বিরোধীদলীয় নেতার আসনে বসলেন রওশন এরশাদ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সংসদে শূন্য বিরোধীদলীয় নেতার আসনে বসলেন রওশন এরশাদ

অবশেষে জাতীয় পার্টি ঐক্যবদ্ধভাবে জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে বেগম রওশন এরশাদের নাম প্রস্তাব করে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর কাছে চিঠি দিয়েছে। আজ রবিবার জাপার সংসদ সদস্যরা স্পিকারের কার্যালয়ে গিয়ে তাঁর হাতে চিঠিটি হস্তান্তর করেন। অধিবেশন চলাকালে শূন্য বিরোধী দলের আসনে বসেন রওশন এরশাদ। 

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, রবিবার দুপুর ১টায় জাতীয় পার্টির সংসদীয় কমিটির যে বৈঠক  হবার কথা থাকলেও সেটি হয়নি। অধিবেশন শুরুর আগে সংসদ লবীতে বৈঠক হয়েছে বলে জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে জানানো হয়। সন্ধ্যায় অধিবেশনের বিরতি চলাকালে সংসদ লবিতে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ বলেন, বেগম রওশন এরশাদকে বিরোধী দলের নেতা করার জন্য স্পিকারকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের স্বাক্ষরিত চিঠিতে জাতীয় পার্টির ২৫ জন সংসদ সদস্য স্বাক্ষর করেছেন। সর্বসম্মতভাবে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেও তিনি জানান।

এর আগে সংসদ ভবনে জাতীয় পার্টির কয়েকজন সংসদ সদস্য বসে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেন। বিরোধীদলীয় প্রধান হুইপ ও জাতীয় পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা সংসদ লবি থেকে বের সাংবাদিকদের বলেন, আমাদের দলের সংসদ সদস্যরা সংসদীয় দলের সভায় বিরোধী দলের নেতা হিসেবে রওশন এরশাদকে মনোনয়ন করে স্পিকারের কাছে চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। দলের পক্ষ থেকেও একটি চিঠি দিয়ে এটা জানিয়ে দেওয়া হবে। 

বিরোধী দলের উপনেতা কে হবেন এমন প্রশ্নে জাপা মহাসচিব বলেন, বিরোধী দলের নেতা মনোনীত হওয়ার পর তিনি সিদ্ধান্ত নিবেন কে হবেন বিরোধী দলের উপনেতা। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের মধ্যে কোন বিরোধী নেই। গেইম ইজ ওভার। 

মশিউর রহমান রাঙ্গা জানান, গত শনিবার সর্বসম্মতিক্রমে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে জি এম কাদের দায়িত্ব পালন করবেন। আর সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন বেগম রওশন এরশাদ। রংপুরের উপ-নির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন এইচ এম এরশাদের পুত্র রাহগির আল মাহে সাদ। 

সাংবাদিকদের জাপা মহাসচিব বলেন, জাপার মধ্যে সাময়িকভাবে যে বিরোধ সৃষ্টি হয়েছিল তা মিটে গেছে। আমরা সর্বসম্মতিক্রমে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি। রংপুর-৩ আসনে সাদ এরশাদকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। নির্বাচন কমিশন (ইসি)তে দু’পক্ষ থেকে যে চিঠি দেওয়া হয়েছে তা তুলে নেওয়া হবে। এছাড়া দলের সিদ্ধান্ত ইসিতে জানিয়ে দেওয়া হবে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা