kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

চার কার্যদিবসের সংসদ অধিবেশন শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৯:০৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চার কার্যদিবসের সংসদ অধিবেশন শুরু

একাদশ জাতীয় সংসদের চতুর্থ অধিবেশন রবিবার বিকেলে শুরু হয়েছে। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হওয়া এই অধিবেশন আগামী ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে। মাত্র চার কার্যদিবসের এই অধিবেশন প্রতিদিন বিকেল ৫টায় বসবে।

সূত্র জানায়, সাংবিধানিক বাধ্য-বাধকতার কারণে সংসদের চলতি অধিবেশন ডাকা হয়েছে। এর আগে ১১ জুলাই সংসদের তৃতীয় (বাজেট) অধিবেশন সমাপ্ত হয়। রবিবার সংসদ অধিবেশন শুরুর আগে জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত হয় সংসদের কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠক। সেখানে  কমিটির সদস্য সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধী দলীয় উপনেতা রওশন এরশাদ, আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, ওবায়দুল কাদের, হাসানুল হক ইনু, মো. ফজলে রাব্বী মিয়া, আনিসুল হক, ব্যারিষ্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, নূর-ই-আলম চৌধুরী এবং আবদুস সাত্তার ভুঞা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে জানানো হয়, চলতি অধিবেশনে সংসদে উত্থাপণের জন্য এ পর্যন্ত তিনটি সরকারি বিলের নোটিশ পাওয়া গেছে। আর অনিষ্পন্ন দুটি সরকারি বিল পাশের জন্য কমিটিতে পরীক্ষাধীন রয়েছে। বেসরকারি সদস্যদের নিকট হতে একটি বিলের নোটিশ পাওয়া গেছে এবং অনিষ্পন্ন একটি বিল রয়েছে। সংসদে উত্তরদানের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে ৭০টি ও মন্ত্রীর কাছে এক হাজার ৫৫৩ টি প্রশ্ন পাওয়া গেছে। এছাড়া সিদ্ধান্ত প্রস্তাব (বিধি-১৩১) ১০৯টি, মূলতবী প্রস্তাব (বিধি-৬২) ১৫টি ও মনোযোগ আকর্ষনীয় (বিধি-৭১) ৬০টি নোটিশ পাওয়া গেছে।

এদিকে অধিবেশনের শুরুতে স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকারের অনুপস্থিতিতে অধিবেশন পরিচালনার জন্য ৫ সদস্যের সভাপতিমন্ডলী নির্বাচিত করা হয়। তারা হলেন- উপাধ্যক্ষা আবদুস শহীদ, এনামূল হক, মৃণাল কান্তি দাশ, কাজী ফিরোজ রশীদ ও জয়া সেনগুপ্ত। এরপর শোক প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা শেষে সংসদ অধিবেশন সোমবার বিকেল ৫টা পর্যন্ত মূলতবি করা হয়।

অধিবেশনকে কেন্দ্র করে সংসদ ভবন এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। অধিবেশনে আওয়ামী লীগের পাশাপাশি বিরোধী দল জাতীয় পার্টি, বিএনপিসহ অন্যান্য দলের এমপিরা উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা