kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

'সুস্থ দেখিয়ে খালেদা জিয়াকে কারাগারে পাঠানোর ষড়যন্ত্র হচ্ছে'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৭:৪৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'সুস্থ দেখিয়ে খালেদা জিয়াকে কারাগারে পাঠানোর ষড়যন্ত্র হচ্ছে'

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া মারাত্মক অসুস্থ। তাকে কোনো ধরনের সুচিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে না। অথচ এই মুহূর্তে তাকে সুস্থ দেখিয়ে পুনরায় কারাগারে পাঠানোর ষড়যন্ত্র করছে সরকার। অথচ তার শারীরিক অবস্থা দিন দিন খারাপের দিকে যাচ্ছে।

আজ রবিবার নয়া পল্টনের দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, প্রতিদিনই তার স্বাস্থ্যের অবনতি  ঘটছে। আত্মীয়স্বজন যারা দেখা করতে যান, আমরা গিয়েছি, আমরা জানি, তাকে বিছানা থেকে ওঠাতেও দুজনকে সাহায্য করতে হয়, বিছানা থেকে ওয়াশরুমে যাওয়ার জন্যে তাকে হুইল চেয়ারে করে নিতে হয় সেখানেও আরো দুইজনকে হেলপ করতে হয়।

মির্জা ফখরুল বলেন, এখনও তিনি পা বেন্ড করতে পারেন না, চেয়ারে বসলে পা সোজা করে রাখতে হয়। রাতে ঠিকভাবে ঘুমাতে পারেন না, তার দুই কাঁধ প্রায় ফ্রোজেন, হাতগুলো ফ্রোজেন হয়ে যাচ্ছে। অসুখটা এমন যেটা- ইরিভারসেভেল ডিজিস, যে ক্ষতিটা হবে তা আর কোনো চিকিৎসাতেই ফিরে আসবে না।

তিনি বলেন, প্যারোল চাওয়ার অধিকার তো আমাদের নাই। প্যারোল চাইতে পারেন পেসেন্ট নিজে। উনি তো চাননি এখন পর্যন্ত। বলেছেন যে, আমি প্যারোল চাচ্ছি না। ভবিষ্যতে চাইবেন কিনা আমরা বলতে পারব না।

ফখরুল আরো বলেন, বিএসএমএমইউর ভাইস চ্যান্সেলর গতকাল সাংবাদিকদের বলেছেন, তিনি (খালেদা জিয়া) এখন সুস্থ হয়ে গেছেন, তার রোগের উপশম হয়েছে এবং পরিচালক.. সম্ভবত তিনিও বলেছেন, তিনি (খালেদা জিয়া) এখন সুস্থ।

তিনি বলেন, আমরা মনে করি, এটা ষড়যন্ত্রেরই একটা অংশ। তাকে আবার চিকিৎসা না দিয়ে কারাগারে পাঠানোর একটা ক্ষেত্র তৈরি করতে চাচ্ছে। আমরা যেটা বলতে চাই, দেশনেত্রীর চিকিৎসা যদি প্রোপারলি না হয় তাহলে যেটা তার ঘটছে সেটা হচ্ছে- প্রতিদিন তার শরীর আরও খারাপ হচ্ছে, অবনতি হচ্ছে তার স্বাস্থ্যের । যেটাকে বলা হচ্ছে যে, প্রোগ্রেসিভলি খারাপের দিকে যাচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, কেন্দ্রীয় নেতা মীর সরফত আলী সপু, আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী, আবদুস সালাম আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা