kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ক্ষেতমজুর সমিতির দুই দিনব্যাপী বর্ধিত সভা শুরু

গ্রামীণ মজুরদের স্বার্থ রক্ষায় আন্দোলন গড়ে তোলার আহবান

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২৩:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গ্রামীণ মজুরদের স্বার্থ রক্ষায় আন্দোলন গড়ে তোলার আহবান

ছবি: কালের কণ্ঠ

বাংলাদেশ ক্ষেতমজুর সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির বর্ধিত সভা থেকে ক্ষেতমজুরসহ গ্রামীণ মজুরদের স্বার্থ রক্ষায় আন্দোলন গড়ে তোলার আহবান জানানো হয়। সভায় নেতারা বলেন, ক্ষেতমজুরসহ গ্রামীণ মজুররা আজ অসহায়। ধান কাটা ও লাগানোর দুই মাস বাদে বাকি সময় গ্রামে কাজ না থাকায় গরিব মানুষ শহরে কাজের আশায় পরিবার পরিজন নিয়ে অমানবিক জীবনযাপনে বাধ্য হচ্ছে।

আজ শুক্রবার রাজধানীর পুরানা পল্টনস্থ মুক্তিভবনে অনুষ্ঠিত দুই দিনব্যাপী সভার প্রথমদিনে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি সোহেল আহমেদ। সভায় কেন্দ্রীয় কমিটির রিপোর্ট উত্থাপন করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন রেজা। সভায় বক্তৃতা করেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাকালীন সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমসহ কেন্দ্রীয় ও জেলা নেতারা। শুরুতে শোক প্রস্তাব পাঠ করেন আরিফুল ইসলাম নাদিম।

সভায় মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, দেশ স্বাধীনের ৫০ বছর হতে চললেও দেশের অধিকাংশ মানুষের সরকার কায়েম হয়নি। বারবার লুটপাট-দুর্নীতিবাজদের কবলে দেশ নিষ্পেষিত হয়েছে। তিনি বলেন, খয়রাতি-ভাতার জন্য আমরা মুক্তিযুদ্ধ করি নাই। সকলের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্যই লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতার স্বপ্ন থেকে বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ অনেক দূরে সরে গেছে। ভিশন মুক্তিযুদ্ধ ৭১’ বাস্তবায়ন করে লাখ শহীদের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তোলার আহবান জানান তিনি।

সভায় নেতৃবৃন্দ গ্রামে-গঞ্জে কর্মসংস্থান সৃষ্টি, গ্রামীণ বরাদ্দ লুটপাট বন্ধ ও ন্যূনতম দামে পল্লী রেশনের মাধ্যমে খাদ্যসামগ্রী সরবরাহের দাবি জানান। তারা বলেন, দেশে হাজার হাজার একর খাসজমি, খাস পুকুর বড়লোকের দল দখল করে আছে। অথচ কোটি কোটি ভূমিহীন খোলা আকাশের নিচে বাস করে। অবিলম্বে খাসজমি ভূমিহীনদের মধ্যে বণ্টনের দাবি জানান তারা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা