kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

'রোহিঙ্গা সংকট সমাধানের বড় বাধা দুর্বল পররাষ্ট্রনীতি'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৬:১৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'রোহিঙ্গা সংকট সমাধানের বড় বাধা দুর্বল পররাষ্ট্রনীতি'

দুর্বল পররাষ্ট্রনীতির কারণে রোহিঙ্গা সমস্যা সমধান হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তিনি বলেছেন, ৭১ সালে আমরাও শরণার্থী হিসেবে আরেক দেশে আশ্রয় নিয়েছিলাম। ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তানের আত্মসমর্পণের পর আমরা নিজেরাই সে দেশ থেকে চলে এসেছি। আমাদের কারও জোর করে পাঠাতে হয়নি। অথচ আজকে যে রোহিঙ্গারা এসেছেন, তাদের প্রত্যাবাসন করতে পারছে না। এটা সরকারের দুর্বল পররাষ্ট্রনীতির কারণে হয়েছে।

আজ বুধবার বাংলাদেশ ডেমোক্রেটিক কাউন্সিল (বিডিসি) আয়োজিত ‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ায় সংকট নিরসনের উপায়’ শীর্ষক আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

গয়েশ্বর বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যা আমাদের দেশের আলাদা নয়। এটাকে এক মনে করি। অভিন্ন মনে করি। সরকারের রাষ্ট্র পরিচালনায় ব্যর্থতা, সরকারের পররাষ্ট্রনীতিতে ব্যর্থতা এটি। তাই জাতীয়তাবাদী শক্তির মুখপাত্র হিসেবে দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে বলছি, জাতীয়তাবাদী দল আজকের এই অবস্থা থেকে মুক্তি চায়।

তিনি বলেন, দেশে গণতন্ত্র নেই। আইনের শাসন নেই। বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নেই। দুর্নীতিতে ভরে গেছে। দুর্নীতির কারণেই আজকে ক্ষমতায় যাওয়ার প্রবণতা বেশি। ক্ষমতায় থাকার প্রবণতা বেশি থাকার কারণ বিনা ভোটে একবার ক্ষমতায় গেলে কোটি কোটি টাকা কামানো সম্ভব। তখন আইজিপি এসেও সালাম দেন। আর আমি যত বড় লোকই হইনা কেন যখন ক্ষমতায় নেই তখন কনস্টেবল এসেও মাথায় বাড়ি দেবেন। সুতরাং এই যে বৈষম্য নাগরিকতার ক্ষেত্রে এই বৈষম্যগুলোই আজকের অস্থিরতার শেষ সীমানায় পৌঁছে গেছে।

আলোচনাসভায় আরো বক্তব্য দেন গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লা চৌধুরী, বিএনপি ভাইস চেয়ারম্যান আহমেদ আজম, বিএনপি যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সভাপতি কাদের গণি চৌধুরী প্রমুখ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা