kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

জাপানি নাগরিক হত্যা : চারজনের সাক্ষ্য গ্রহণ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৭:২২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জাপানি নাগরিক হত্যা : চারজনের সাক্ষ্য গ্রহণ

রাজধানীর উত্তরায় জাপানি নাগরিক হিরোয়ি মিয়াতা হত্যা মামলায় চারজন সাক্ষী সাক্ষ্য দিয়েছেন। আজ রবিবার ঢাকার চতুর্থ অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতে সাক্ষীরা সাক্ষ্য দেন।

রবিবার যারা সাক্ষ্য দেন তারা হলেন উত্তরা সিটি হোমস আবাসিক হোটেলের পরিচালক শাহাদাত ফিরোজ শিকদার, নিরাপত্তারক্ষী মো. বোরহান, আবদুল খালেক ও মো. শাহজাহান। চারজনকে আসামি পক্ষ জেরা করার পর বিচারক মাকসুদা পারভীন আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর পরবর্তী সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য করেন। এই মামলায় এ নিয়ে সাতজনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হলো।

২০১৫ সালের ২৬ অক্টোবর থেকে ব্যবসায়ী মিয়াতা নিখোঁজ ছিলেন। ওইদিন থেকে ফোনে মিয়াতার মা তাকে না পাওয়ায় জাপানি দূতাবাসকে তিনি বিষয়টি জানান। জাপানি দূতাবাস এ বিষয়ে এজাহার করেন। পরে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন জাকিরুল ইসলাম ও মারুফুল ইসলাম ছিলেন মিয়াতার ব্যবসায়িক অংশীদার। তারা মিয়াতাকে অপহরণ করে বিভিন্ন স্থানে আটক রেখে মুক্তিপন দাবি করেন। তিনদিন আটকে রাখার পর ২৯ অক্টোবর মিয়াতাকে হত্যা করে লাশ দাফন করে আসামিরা।

গোয়েন্দা পুলিশ ঢাকা ও লক্ষ্মীপুরে অভিযান চালিয়ে মারুফুল ইসলাম, রাশেদুল হক ওরফে বাপ্পী, ফখরুল ইসলাম, বিমলচন্দ্র শীল ও মো. জাহাঙ্গীরকে গ্রেপ্তার করে। এদের মধ্যে বিমল পেশায় চিকিৎসক। বাকিরা পোশাক ব্যবসায়ী। মিয়াতার মাধ্যমে তারা জাপানসহ বিভিন্ন দেশে ব্যবসা করতেন। তাদের গ্রেপ্তারের পর মিয়াতার লাশ কবর থেকে তোলা হয়।

২০১৬ সালের ৩০ জুন উত্তরা পূর্ব থানার পরিদর্শক (ভারপ্রাপ্ত) আবু বকর মিয়া ছয়জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন। ৩ নভেম্বর আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা