kalerkantho

রাজধানীর অচল খালে জলাবদ্ধতা, মশার চাষ!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ আগস্ট, ২০১৯ ০৭:২৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজধানীর অচল খালে জলাবদ্ধতা, মশার চাষ!

রাজধানীর বেশ কয়েকটি খালে পানিপ্রবাহ নেই। ময়লা-আবর্জনা ও দখল-দূষণে বিপর্যস্ত এসব খাল। রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে বদ্ধ পানিতে জলাবদ্ধতা তৈরি হচ্ছে, যেখানে মশার বংশবৃদ্ধি হচ্ছে। ঢাকা শহরের খাল রক্ষা ও প্রবহমান রাখার মূল দায়িত্ব ঢাকা ওয়াসার। সংস্থাটির আওতায় রয়েছে ২৬টি খাল, যার দৈর্ঘ্য প্রায় ৭৪ কিলোমিটার। কিন্তু জলাবদ্ধতা ও মশার উপদ্রব বন্ধ, নগরীর পরিচ্ছন্নতা এবং সৌন্দর্য রক্ষায় খালগুলোর গুরুত্ব উপলব্ধি করতে ওয়াসা উদাসীন বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে ওয়াসা কর্মকর্তাদের দাবি, অর্থ বরাদ্দ কম বলে খাল সচল রাখতে ব্যর্থ হচ্ছে সংস্থাটি।

সরেজমিনে দেখা যায়, ঢাকা ওয়াসার ২৬টি খালের মধ্যে ১৫টি খাল ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে। এ ১৫টি খালে পানিপ্রবাহ সচল না থাকায় বিভিন্ন এলাকায় সৃষ্টি হচ্ছে জলাবদ্ধতা। পানিপ্রবাহ না থাকায় কোনো কোনো খালের পার হয়েছে দখল। রাজধানীর বাইশটেকী, বেগুনবাড়ী এবং সাংবাদিক কলোনি, বাউনিয়া, ইব্রাহিমপুর, কশাইবাড়ী, আব্দুল্লাপুর, শাহজাদপুর, মহাখালী, রূপনগর, রামচন্দ্রপুর, সুতিভোলা খালের মূল অংশও দখল হয়েছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। এসব খাল উদ্ধারে ওয়াসার পক্ষ থেকে জোরালো কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ার অভিযোগও করছে তারা। বেগুনবাড়ী, সাংবাদিক কলোনি এবং বাইশটেকী খাল দখল করে পাকা ভবন তৈরি করা হলেও তা উদ্ধারে কোনো তৎপরতা নেই  ওয়াসা কর্তৃপক্ষের। ওয়াসার কত কিলোমিটার খাল দখল হয়েছে, সে সম্পর্কেও সুস্পস্ট কোনো তথ্য নেই সংস্থাটির কাছে। কালশীর সাংবাদিক হাউজিং সোসাইটির সভাপতি নুরুল হুদা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘সাংবাদিক কলোনি, বাইশটেকী এবং সেগুনবাগিচা খাল প্রবহমান ছিল। এসব খাল দিয়ে একসময় নৌকা চলাচল করত। এখন এসব খাল চলে গেছে দখলদারদের কবলে।’

এ ছাড়া ওয়াসার আওতাধীন কাটাসুর-কল্যাণপুরের ছয়টি খাল, দিগুণ খাল, জিরানী খাল, সবুজবাগ-বাসাবো খাল, রূপনগর খাল, রূপনগর ব্রাঞ্চ (আরামবাগ) খাল, দেবধোলাই খালও দূষণ-দখলে বিপর্যস্ত। ময়লার ভাগাড়ের ওপর বেশির ভাগ খালে জন্মেছে নানা প্রজাতির আগাছা।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নিজেদের অর্থ ব্যয়ে সাংবাদিক কলোনি ও কল্যাণপুর খাল পরিষ্কার করেছে। চলতি বর্ষার শুরুতে কালশী ও কল্যাণপুর এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হওয়ায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। এরপর মেয়র আতিকুল ইসলাম বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের মাধ্যমে খাল দুটি পরিষ্কারের উদ্যোগ নেন।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা