kalerkantho

রবিবার। ১৮ আগস্ট ২০১৯। ৩ ভাদ্র ১৪২৬। ১৬ জিলহজ ১৪৪০

ন্যাপকিন তৈরির কাঁচামালে কর প্রত্যাহারের পরামর্শ বিশিষ্টজনদের

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ জুলাই, ২০১৯ ১৮:৪৯ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ন্যাপকিন তৈরির কাঁচামালে কর প্রত্যাহারের পরামর্শ বিশিষ্টজনদের

ছবি: কালের কণ্ঠ

স্যানিটারি ন্যাপকিন তৈরিতে ব্যবহৃত কাঁচামালের আমদানিতে কর প্রত্যাহার করার পরামর্শ দিয়েছেন দেশের বিশিষ্টজনেরা। তারা বলেছেন, স্যানিটারি ন্যাপকিন তৈরিতে ব্যবহৃত কাঁচামাল আমদানিতে কর থাকলে এর উৎপাদন খরচ বাড়বে। ফলে পণ্যের দামও বেড়ে যাবে। এতে ন্যাপকিন ব্যবহারে নারীরা নিরুৎসাহিত হবে। ফলে নারীস্বাস্থ্য হুমকির মুখে পড়বে। ন্যাপকিন ব্যবহার করা নারীর অধিকার। তাই এ পণ্য তৈরির কাঁচামালে কর আরোপ করা উচিত নয়।

আজ শনিবার দুপুরে দৈনিক কালের কণ্ঠ আয়োজিত ‘স্যানিটারি ন্যাপকিনে ভ্যাট-ট্যাক্স হ্রাস, প্রভাব ও প্রতিবন্ধকতা’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে এ পরামর্শ দেন বিশিষ্টজনেরা।

বিশিষ্টজনেরা বলেন, বলেন, বাংলাদেশে স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যবহারকারী নারীর সংখ্যা মাত্র ৬০ লাখ। প্রায় ৩ কোটি ২০ লাখ নারী ন্যাপকিন ব্যবহারের বাইরে রয়েছেন। কর আরোপের ফলে পণ্যের দাম বাড়লে ন্যাপকিন ব্যবহারের আওতার বাইরে থাকা নারীদের এটি ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করা তো যাবেই না, বরং যারা ব্যবহার করেন, তাদের অনেকেই এটির ব্যবহার বন্ধ করে দিতে পারে।

বক্তারা বলেন, উপবৃত্তির ন্যায় প্রতিটি স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘স্যানিটারি ন্যাপকিন কর্নার’ তৈরি করা যেতে পারে। সরকার বাজেটে এ খাত সৃষ্টি করে বরাদ্দ দিতে পারে। তাহলে স্যানিটারি ন্যাপকিনের ব্যবহার বাড়বে। ফলে নারীর স্বাস্থ্য সুরক্ষিত হবে।

বৈঠকে কালের কণ্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন বলেন, প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই বিভিন্ন ইস্যুতে মানুষের মধ্যে জনসচেতনতা তৈরি করতে কাজ করে যাচ্ছে কালের কণ্ঠ। যেকোনো বিষয়ে জনসচেতনতা বাড়ানো সবচেয়ে জরুরি। মানুষ সচেতন হলে যেকোনো সমস্যাই সমাধান করা সম্ভব। সবাই যদি নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করে যান, তাহলে সব সমস্যার সমাধান হবে। স্যানিটারি ন্যাপকিনের বিষয়েও সুন্দর একটি সমাধান আসবে।

ওয়াটার এইডের কান্ট্রি ডিরেক্টর ডা. খাইরুল ইসলাম বলেন, স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যবহার নারীর অধিকার। নিত্য ব্যবহার্য এ পণ্যের কাঁচামালের ওপর কর আরোপ করলে এর প্রভাব বাজারে পড়বে। আশা করি আগামী কয়েক মাসের মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) কর্তৃপক্ষ বিষয়টির সুন্দর সমাধান বের করবে।

বসুন্ধরা গ্রুপের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বাংলাদেশ হাইজিন প্রোডাক্ট ম্যানুফ্যাকচার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, পূর্বে অগ্রিম বাণিজ্য কর ছিল না। কিন্তু এখন অগ্রিম কর দিয়ে কাঁচামাল আমদানি করতে হয়। ফলে পণ্য বিক্রি হোক বা না হোক, ভ্যাট দিতেই হয়। তাই বাজারে ন্যায্য প্রতিযোগিতা থাকলে হয়তো এ পণ্যের দাম বাড়বে না।

এনবিআর এর ফার্স্ট সেক্রেটারি মুহাম্মদ তারিক হাসান রিকাবদার বলেন, দাম কোনো ফ্যাক্টর না। দাম যদি ফ্যাক্টর হতো তাহলে ৬০ লাখ নারী ন্যাপকিন ব্যবহার করতো না। দামের চেয়েও বড় বিষয় ব্যবহার বাড়ানো। সেজন্য সরকার স্বাস্থ্য খাতের আওতায় একটি বিশেষ প্রকল্প হাতে নিতে পারে। সেখান থেকে বিনামূল্যে নারীরা সেটা ব্যবহার করতে পারবে। স্টেক হোল্ডারসহ আপনারা সবাই মিলে সরকারকে এ রকম একটি প্রস্তাবনা দিতে পারেন।

এনবিআরের এই কর্মকর্তা বলেন, যেহেতু এ বিষয়ে প্রশ্ন উঠেছে, তাই আমরা বিষয়টি নিয়ে আরো বিশ্লেষণ-অধ্যয়ন করব। যেহেতু আমরা খুব অল্প সময়ে সেটা করেছি, তাই কিছু ফাঁক থাকতে পারে। যদি তা থাকে, তাহলে সবার মতামতের ভিত্তিতে সন্তোষজনক সমাধান করবো।

গোল টেবিল বৈঠকে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কালের কণ্ঠের নির্বাহী সম্পাদক মোস্তফা কামাল। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন ওয়াটার এইডের কান্ট্রি ডিরেক্টর ডা. খাইরুল ইসলাম, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের ফার্স্ট সেক্রেটারি মুহাম্মদ তারিক হাসান রিকাবদার ছাড়া আরো অংশ নেন ওজিএসবির সভাপতি অধ্যাপক ডা. সামিনা চৌধুরী, এসিআই লিমিটেডের বিজনেস ডিরেক্টর কামরুল হাসান, প্র্যাক্টিক্যাল অ্যাকশনের কান্ট্রি ডিরেক্টর হাসিন জাহান, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার অনীতা গাজী রহমান, টেলিভিশন চ্যানেল নিউজ ২৪ এর হেড অব নিউজ শাহনাজ মুন্নী, বাংলাদেশ হেলথ রিপোটার্স ফোরামের সভাপতি তৌফিক মারুফ, স্কয়ার টয়লেট্রিজ এর পরিচালক আব্দুল্লাহ আল জাবেদ, ব্লাস্টের লিগ্যাল অফিসার অ্যাডভোকেট আয়েশা আক্তার, সেভ দ্য চিলড্রেনের ডা. ওয়াহিদা সিরাজ, ওয়ার্ল্ড ভিশনের কো-অর্ডিনেটর মন্দিরা গুহ নিয়োগী, সাজেদা ফাউন্ডেশনের অ্যাডভোকেসি কো-অর্ডিনেটর মো. ফজলুল হক ও গার্মেন্টস ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক জলি তালুকদার প্রমুখ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা