kalerkantho

শুক্রবার । ২৩ আগস্ট ২০১৯। ৮ ভাদ্র ১৪২৬। ২১ জিলহজ ১৪৪০

জবি ছাত্রলীগের সম্মেলনকে ঘিরে পদপ্রত্যাশীদের দৌড়ঝাপ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১৭ জুলাই, ২০১৯ ২১:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জবি ছাত্রলীগের সম্মেলনকে ঘিরে পদপ্রত্যাশীদের দৌড়ঝাপ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের কমিটি চার মাস বিলুপ্তির পর শনিবার শাখা ছাত্রলীগের দ্বিতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলন ঘিরে ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের পদপ্রত্যাশী নেতাকর্মীদের উপস্থিতি বেড়েছে। এ ছাড়া গুলিস্থান, ধানমণ্ডির দলীয় অফিস, মধুর ক্যান্টিনসহ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বাসায় দৌড়ঝাপ বৃদ্ধি হয়েছে পদপ্রত্যাশী নেতাকর্মীদের।

জবি শাখা ছাত্রলীগের দ্বিতীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, সম্মেলন বক্তা হিসেবে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ খান বিপু, বিশেষ অতিথি হিসেবে আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য অ্যাডভোকেট কাজী নজীবুল্লাহ হীরু, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, নজরুল ইসলাম বাবু এমপিসহ জগন্নাথ ছাত্রলীগের সাবেক শীর্ষ নেতারা উপস্থিত থাকবেন।

জানা যায়, গত ৩ ফেব্রুয়ারি প্রেমঘটিত তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি তরিকুল ইসলাম  ও সাধারণ সম্পাদক শেখ জয়নুল আবেদিন রাসেলের কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় কমিটি স্থগিত করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। কিন্তু আবার সংঘর্ষে জড়ালে ১৯ ফেব্রুয়ারি কমিটি বিলুপ্ত করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। 

শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি দৌড়ে এগিয়ে আছেন সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ইব্রাহিম ফরাজি, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ শাকিল, সাবেক সহ-সভাপতি জামাল হোসেন, সাবেক সহসভাপতি আশরাফুল ইসলাম টিটন, সাবেক উপ-মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক নাহিদ পারভেজ, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হোসেন মোবারক রিসাদ।

সাধারণ সম্পাদক পদে একই শাখার সাবেক সহ-সভাপতি আল আমীন শেখ, সদ্য সাবেক দপ্তর সম্পাদক শাহবাজ হোসাইন বর্ষণ, সাংগঠনিক সম্পাদক আকতার হোসাইন ও আসাদুজ্জামান আসাদ এগিয়ে আছেন। এ ছাড়া সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তারেক আজীজ, মো.নাজমুল আলম, সাবেক সহ-সভাপতি শরিফুল ইসলাম, সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য শেখ মেহেদী হাসান, সহ-সম্পাদক মাহমুদ হোসাইন পারভেজ ও ইনজামামুল ইসলাম নিলয়ের নাম রয়েছে এ তালিকায়।

জবি ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বনী বলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কমিটিতে নেতিবাচক কোনো নেতাকর্মীর স্থান হবে না। মানবিক ও সৃজনশীল নেতাদের স্থান দেওয়া হবে। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ এ বিষয়ে কোনো আপস করবে না।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা