kalerkantho

রবিবার। ১৮ আগস্ট ২০১৯। ৩ ভাদ্র ১৪২৬। ১৬ জিলহজ ১৪৪০

ঢাকা ছাড়ার আগে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা কোরীয় প্রধানমন্ত্রীর

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

১৬ জুলাই, ২০১৯ ০২:০৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঢাকা ছাড়ার আগে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা কোরীয় প্রধানমন্ত্রীর

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের মধ্য দিয়ে গতকাল সোমবার বাংলাদেশ সফরের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করেছেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রধানমন্ত্রী লি নাক-ইয়োন। তিনি গতকাল সকালে ঢাকায় ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে যান। সেখানে তিনি বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে তাঁর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানান। তিনি জাদুঘর পরিদর্শন এবং পরিদর্শক বইয়ে সই করেন। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কন্যা এবং বাংলাদেশের অটিজমবিষয়ক জাতীয় উপদেষ্টা কমিটির সভাপতি সায়মা ওয়াজেদ হোসেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রধানমন্ত্রীকে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর প্রাঙ্গণে অভ্যর্থনা জানান এবং জাতির পিতার ইতিহাস সম্পর্কে ব্রিফ করেন।

বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর থেকে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রধানমন্ত্রী হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যান। সেখানে তাঁকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রধানমন্ত্রীর তিন দিনের এ সফরে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। তাঁরা জানান, লি নাক-ইয়োন বাংলাদেশকে সম্ভাবনার দেশ বলে অভিহিত করেছেন। রোহিঙ্গা সংকট সমাধানের বিষয়ে তিনি বাংলাদেশকে সম্ভাব্য সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। বাংলাদেশকে ১০০ কোটি মার্কিন ডলার উন্নয়ন সহায়তা দেওয়ারও আশ্বাস দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দক্ষিণ কোরিয়ার বাজারে সব বাংলাদেশি পণ্যের শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার দিতে অনুরোধ জানিয়েছেন। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রধানমন্ত্রী ওই অনুরোধ বিবেচনার আশ্বাস দিয়েছেন। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও লি নাক-ইয়োনের বৈঠক শেষে গত সোমবার বাংলাদেশ ও দক্ষিণ কোরিয়া বাণিজ্য ও বিনিয়োগ এবং কূটনীতি ও সাংস্কৃতিক খাতে পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়াতে তিনটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) ও কর্মসূচি সই করেছে। 

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রধানমন্ত্রী গত রবিবার দুই দেশের ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে বক্তব্য রাখার সময় বাণিজ্য সম্পর্ক আরো জোরদার করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, বাংলাদেশের বিভিন্ন খাতে বিশেষ করে, জ্বালানি, অবকাঠামো, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) এবং হাইটেক খাতে দক্ষিণ কোরিয়া সহযোগিতা করতে চায়। 

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রধানমন্ত্রী তাঁর সফরকালে মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মত্যাগকারী বীর শহীদদের প্রতি সম্মান জানিয়েছেন। এ ছাড়া তিনি কোরীয় কারখানা ও ঢাকার মুগদাপাড়ায় ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যাডভান্সড নার্সিং এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চ পরিদর্শন করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা