kalerkantho

বুধবার । ১৭ জুলাই ২০১৯। ২ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৩ জিলকদ ১৪৪০

পদ্মা সেতু নিয়ে গুজব ছড়ানোয় স্কুলছাত্র গ্রেপ্তার, ছেলেধরা সন্দেহে আটক ১

রাজবাড়ী ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি    

১২ জুলাই, ২০১৯ ০৮:৩৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পদ্মা সেতু নিয়ে গুজব ছড়ানোয় স্কুলছাত্র গ্রেপ্তার, ছেলেধরা সন্দেহে আটক ১

পদ্মা সেতু নির্মাণ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলা থেকে এক স্কুলছাত্রকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার পাট্টা ইউনিয়নের বয়রাট গ্রামের বাড়ি থেকে তাকে আটক করা হয়।

পার্থ আল হাসান (১৪) নামের এ কিশোর বয়রাট গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে। সে স্থানীয় মাজাইল বিএমডি উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র।

এদিকে এমন গুজব ছড়িয়েছে ব্রাহ্মবাড়িয়ায়। গতকাল জেলার আখাউড়ায় ছেলেধরা সন্দেহে এক যুবককে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় লোকজন।

গতকাল বিকেলে র‌্যাব-৮ ফরিদপুর ক্যাম্পের কম্পানি অধিনায়ক মেজর শেখ নাজমুল আরেফিন পরাগ সাংবাদিকদের জানান, বাহিনীর সাইবার মনিটরিং সেল কিছুদিন আগে একটি ফেসবুক আইডি শনাক্ত করে। এর কার্যক্রম পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে দেখা যায়, এ আইডি ব্যবহারকারী রাষ্ট্রীয় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুতে গুজব সৃষ্টি করে জনমানুষের মধ্যে ভীতি ছড়াচ্ছে। এ ছাড়া আইন-শৃঙ্খলা পরিপন্থী কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। সম্প্রতি ‘পদ্মা সেতু নির্মাণ কাজ পরিচালনায় মানুষের মাথা লাগবে’ এবং দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে একটি চক্র মানুষের মাথা কেটে নিয়ে যাচ্ছে বলে ওই ফেসবুক আইডি থেকে গুজব রটানো হয়েছে, যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

এ ঘটনায় গোয়েন্দা তথ্যর ভিত্তিতে গতকাল ভোরে পার্থর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। সেই সঙ্গে গুজব ছড়ানোর অপকর্মে ব্যবহূত মোবাইল ফোনসেটটিও জব্দ করা হয়েছে।

র‌্যাব কর্মকর্তা আরো জানান, পার্থর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তার কাছ থেকে আরো কিছু তথ্য পাওয়া গেছে। এসব তথ্য খতিয়ে দেখছেন তাঁরা।

এদিকে পদ্মা সেতু নিয়ে এমন গুজব ছড়িয়ে পড়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। এতে উদ্বিগ্ন অভিভাবকরা। নিছক গুজব বুঝতে পারলেও কেউ কেউ সন্তানদের নিয়ে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করছেন। ছেলেধরা সন্দেহে জেলার আশুগঞ্জ উপজেলা সদরের চর চারতলা এলাকায় গত বুধবার গণপিটুনিতে এক যুবক মারা গেছে। গতকাল আখাউড়া পৌর এলাকার দেবগ্রামে একজনকে আটক করা হয়েছে।

এ অবস্থায় স্থানীয় পুলিশের পক্ষ থেকে গুজবে কান না দেওয়ার আহ্বান জানানো হচ্ছে। মাইকিং করা হয়েছে জেলা সদরে। পদ্মা সেতুর প্রকল্প কর্তৃপক্ষও একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। বিজ্ঞপ্তিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া নাগরিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক রতন কান্তি দত্ত বলেন, ‘পদ্মা সেতুতে মাথা লাগার বিষয়টি নিছকই একটি গুজব। সবার প্রতি অনুরোধ রইল যেন গুজবে কান না দেন।’

আখাউড়া থানার ওসি মো. রসুল আহমেদ নিজামী বলেন, আটক যুবকের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলায়। তাকে অপহরণকারী বলে মনে হচ্ছে না। ঢাকার উত্তরায় বসবাস করা কসবার গোপীনাথপুরের এক শিশুকে স্টেশনে একা পেয়ে সে বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার জন্য নিয়ে যাচ্ছিল। শিশুটিও পুলিশকে তেমনটাই বলেছে|

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা