kalerkantho

মঙ্গলবার। ১৬ জুলাই ২০১৯। ১ শ্রাবণ ১৪২৬। ১২ জিলকদ ১৪৪০

স্পিকার বললেন

অর্থনৈতিক-রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার জন্য বাংলাদেশ এখন অনন্য উচ্চতায়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ জুন, ২০১৯ ১৬:৩৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অর্থনৈতিক-রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার জন্য বাংলাদেশ এখন অনন্য উচ্চতায়

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেছেন, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার কারণে বাংলাদেশ এখন অনন্য উচ্চতায় অবস্থান করছে। এক্ষেত্রে সংসদ সদস্যগণের অবদান অনস্বীকার্য। আগামীতেও তাদের দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান তিনি।

আজ মঙ্গলবার স্পিকারের সংসদ ভবনস্থ কার্যালয়ে এক বৈঠকে তিনি এ আহ্বান জানান। ইন্টারন্যাশনাল মনিটারি ফান্ড (আইএমএফ) এর এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের প্রধান দাইসাকু কিহারার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সফররত এক প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠকে তারা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, টেকসই উন্নয়ন, জলবায়ু পরিবর্তন, খাদ্য নিরাপত্তা, অর্থনৈতিক উন্নয়নে সংসদ সদস্যদের ভূমিকা ও আইএমএফর কার্যক্রম নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।

বৈঠকে স্পিকার বলেন, জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে সংসদ সদস্যগণ সংসদে জনগণের প্রতিনিধিত্ব করেন। সঙ্গত কারণে জনগণের নিকট সংসদ সদস্যগণ জবাবদিহি করে থাকেন। অন্য দিকে সংসদের কাছে সরকার জবাবদিহি করে। জবাবদিহিতা ও স্বচ্ছতা নিশ্চিতকরত সামাজিক ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে সংসদ সদস্যগণ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিগত কয়েক বছর ধারাবাহিক সাত শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জনের পাশাপাশি অর্থনৈতিক উন্নয়নে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এ প্রবৃদ্ধি বর্তমানে ৮ দশমিক এক শতাংশ। রেমিটেন্স ও রিজার্ভও সমান গতিতে বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমান সরকারের মূল লক্ষ্য বৈষম্য দূর করে দারিদ্রমুক্ত রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করা।

বৈঠকে অর্থনৈতিক উন্নয়নে সংসদ সদস্যগণকে অধিক সম্পৃক্তকরণের উপায় সম্পর্কে স্পিকারকে অবহিত করেন আইএমএফ প্রতিনিধি দলের প্রধান। তিনি বাংলাদেশের অর্থনৈতিক, অবকাঠামোগত উন্নয়ন ও রাজনৈতিক স্থিতিশীলতায় দাইসাকু কিহারা উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে দ্রুত প্রবৃদ্ধি অর্জনের প্রশংসা করেন।

তৈরি পোষাক শিল্পে বাংলাদেশ অনুকরণীয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, কৃষিসহ অন্যান্য শিল্পে বাংলাদেশ  বেশ অগ্রসরমান। তরুণ জনশক্তিকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশ টেকসই উন্নয়নে আরো এগিয়ে যেতে পারে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা