kalerkantho

রবিবার। ১৬ জুন ২০১৯। ২ আষাঢ় ১৪২৬। ১২ শাওয়াল ১৪৪০

দুই ফুট ওভারব্রিজ মেরামতে বছরে ব্যয় ৩০ লাখ টাকা!

শাখাওয়াত হোসাইন   

২৬ মে, ২০১৯ ০৮:৪৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দুই ফুট ওভারব্রিজ মেরামতে বছরে ব্যয় ৩০ লাখ টাকা!

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) চলমান সিঁড়িযুক্ত দুটি ফুট ওভারব্রিজ মেরামতে গত এক বছরে ব্যয় হয়েছে ৩০ লাখ টাকা। দক্ষ ও প্রয়োজনীয়সংখ্যক জনবল না থাকায় এই দুই ফুট ওভারব্রিজ মেরামতের জন্য চুক্তি করা হয়েছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে। এরই মধ্যে চলমান সিঁড়িযুক্ত আরো ৩০টি ফুট ওভারব্রিজ স্থাপন করতে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে প্রকল্প প্রস্তাবনা পাঠিয়েছে সংস্থাটি। আরো ৩০টি চলমান সিঁড়ির ফুট ওভারব্রিজ স্থাপন করা হলে বর্তমান হিসাব অনুযায়ী শুধু মেরামতের জন্যই বছরে ব্যয় হবে চার কোটি ৮০ হাজার টাকার বেশি।

জানা গেছে, ডিএনসিসির বনানী ১১ নম্বর সড়কের কাছে দেশে প্রথমবারের মতো চলমান সিঁড়িযুক্ত একটি ফুট ওভারব্রিজ স্থাপন করা হয়। এতে সংস্থাটির ব্যয় হয় তিন কোটি ৫০ লাখ টাকা। পরবর্তী সময়ে বিমানবন্দরের সামনের সড়কে তিন কোটি ৬৬ লাখ ১৩ হাজার ২৪১ টাকা ব্যয়ে স্থাপন করা হয় চলমান সিঁড়িযুক্ত আরেকটি ফুট ওভারব্রিজ। চলমান সিঁড়িযুক্ত এই দুই ফুট ওভারব্রিজ স্থাপনের পর থেকে প্রায়ই বিকল হওয়ায় সমালোচনার মুখে পড়ে ডিএনসিসি। এগুলো সচল রাখতে হরাইজন বিডি নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নিয়োগ দেওয়া হয়। এই দুটি ফুট ওভারব্রিজ মেরামত করতে গিয়ে গত বছর ৩০ লাখ টাকার বেশি গুনতে হয়েছে সিটি করপোরেশনকে।

এ ছাড়া সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্র আবরার আহাম্মদ চৌধুরীর নামে প্রগতি সরণিতে নির্মাণাধীন ফুট ওভারব্রিজটিও চলমান সিঁড়িযুক্ত হবে। এটিতে শুধু ছাউনি ও এসকেলেটর স্থাপনে ডিএনসিসির ব্যয় হবে দুই কোটি ৫০ লাখ টাকা। বাকি কাজ নিজস্ব অর্থায়নে করে দিচ্ছে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান।

এদিকে চলমান সিঁড়িযুক্ত দুটি ফুট ওভারব্রিজ মেরামতে এত টাকা ব্যয় নিয়ে আপত্তি রয়েছে সংস্থাটির প্রকৌশল দপ্তরের কর্মকর্তাদেরও। এই আপত্তির মধ্যেই চলমান সিঁড়ির আরো ৩০টি ফুট ওভারব্রিজ বানাতে চাইছে ডিএনসিসি। এগুলোর অনুমোদন নিতে চলতি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে একটি প্রকল্প প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে।

ডিএনসিসির প্রকৌশল দপ্তর জানায়, চলমান সিঁড়িযুক্ত দুটি ফুট ওভারব্রিজের মেরামত খরচ বহনই করপোরেশনের পক্ষে সম্ভব নয়। এর ওপর আরো ৩০টি ফুট ওভারব্রিজ স্থাপন করা হলে সেই ব্যয় হবে আকাশচুম্বী। এ ছাড়া নির্দিষ্ট সময় পর পর এসকেলেটর ও বেল্ট পরিবর্তনের জন্য আরো অনেক টাকা খরচ করতে হয়। এ অবস্থায় চলমান সিঁড়ির ফুট ওভারব্রিজ নির্মাণ ও রক্ষণাবেক্ষণে বহুজাতিক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে উদ্বুদ্ধ করছে ডিএনসিসি।

ডিএনসিসির প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল যুবায়ের মুহাম্মদ সালেহীন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘৩০টি ফুট ওভারব্রিজ বানানোর জন্য প্রকল্প প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। তবে তা অনুমোদন ও বাস্তবায়নে সময় লাগবে। মেরামত বাবদ এত টাকা খরচ সিটি করপোরেশনের পক্ষে সম্ভব নয়। আমরা বিকল্প খুঁজছি।’

বিদ্যমান দুটি চলমান সিঁড়িযুক্ত ফুট ওভারব্রিজ মেরামতের খরচ জানা নেই ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলামের। তিনি বলেন, ‘মেরামত খরচ সম্পর্কে আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে জানতে হবে।’ মেয়র কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী মৌখিকভাবে চলমান সিঁড়িযুক্ত ফুট ওভারব্রিজ স্থাপনের নির্দেশনা দিয়েছেন। সেই নির্দেশনা মেনে সব কটি ফুট ওভারব্রিজে ক্রমান্বয়ে চলমান সিঁড়ি যুক্ত করতে চায় করপোরেশন। এর পরিপ্রেক্ষিতে প্রকল্প প্রস্তাব তৈরি করা হয়েছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা