kalerkantho

রবিবার। ১৬ জুন ২০১৯। ২ আষাঢ় ১৪২৬। ১২ শাওয়াল ১৪৪০

গ্রিনল্যান্ডে ইয়াং গ্লোবাল লিডারস এক্সপিডিশন কাল

বাংলাদেশের ঝুঁকি নিরসনে বিশ্ব সম্প্রদায়ের করণীয় তুলে ধরবেন পলক

বাণিজ্য ডেস্ক   

২২ মে, ২০১৯ ২২:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাংলাদেশের ঝুঁকি নিরসনে বিশ্ব সম্প্রদায়ের করণীয় তুলে ধরবেন পলক

বিশ্বে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব ও ভবিষ্যত্ করণীয় ঠিক করতে গ্রিনল্যান্ডের ইলুলিসাত শহরে বৃহস্পতিবার শুরু হতে যাচ্ছে ৫ দিনের ‘ইয়াং গ্লোবাল লিডারস (ওয়াইজিএল) ইম্প্যাক্ট গ্রিনল্যান্ড এক্সপিডিশন’ ২০১৯ শীর্ষক কর্মসূচি। কম কার্বন উত্পাদনকারী দেশ হওয়া সত্ত্বেও, বিশ্বে শিল্পায়নের প্রভাব ও বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির ফলে জলবায়ুর যে বিরুপ পরিবর্তন হচ্ছে-তার প্রভাব বাংলাদেশ ইতোমধ্যেই প্রত্যক্ষ করতে শুরু করেছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশের ঝুঁকি ও তা নিরসনে বিশ্ব সম্প্রদায়ের করণীয় কী হতে পারে তা বিশ্বের তরুণ নেতৃবৃন্দের কাছে তুলে ধরবেন বাংলাদেশের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী পলক বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাব মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেশীয় অর্থায়নে ২০০৯ সালেই ‘বাংলাদেশ ক্লাইমেট চেঞ্জ স্ট্র্যাটেজি অ্যান্ড অ্যাকশন প্ল্যান’ সম্পর্কে অবহিত করবেন এবং তা বাস্তবায়নে বিশ্ব সম্প্রদায়ের দায়বদ্ধতা ও সহযোগিতা কামনা করবেন। পাশাপাশি কিভাবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির প্রয়োগের মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তনের এই স্থানীয় বৈশ্বিক সমস্যা মোকাবিলায় সমন্বিতভাবে কাজ করা যায়, তাও তিনি তুলে ধরবেন।

সুইজারল্যান্ডভিত্তিক ইয়ং গ্লোবাল লিডারস ফোরামের উদ্যোগে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে নির্বাচিত ২০ জন তরুণ নেতা গ্রিনল্যান্ডের ইলুলিসাত শহরে এবারের এই কর্মসূচিতে অংশ নেবেন। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব বিশ্বের তরুণ নেতৃবৃন্দ যাতে খুব কাছ থেকেই প্রত্যক্ষ করতে পারেন এবং তা মোকাবিলায় ভবিষ্যত্ করণীয় ঠিক করতে পারেন, সেজন্যই এবারের আয়োজনের ভেন্যু হিসেবে গ্রিনল্যান্ডকেই বেছে নিয়েছে আয়োজকরা। ২৩ মে থেকে শুরু হওয়া ‘ওয়াইজিএল ইম্প্যাক্ট গ্রিনল্যান্ড এক্সপিডিশন’ শীর্ষক আয়োজনটি চলবে আগামী ২৭ মে পর্যন্ত।

সুইজারল্যান্ডভিত্তিক অলাভজনক প্রতিষ্ঠান ‘দ্য ওয়ার্ল্ড ইকনোমিক ফোরাম’ ২০১৬ সালে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলককে ‘ইয়াং গ্লোবাল লিডার’ হিসেবে মনোনীত করেছ। সুইজারল্যান্ড ভিত্তিক এই থিংকট্যাংক প্রতি বছরই সারা পৃথিবী থেকে নিজ নিজ কর্মক্ষেত্রে ঔজ্জ্বল্য ছড়ানো ৪০ বছরের কম বয়সী ব্যক্তিদের পাঁচ বছরের জন্য এ সম্মাননা প্রদান করে থাকে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা