kalerkantho

সোমবার। ১৭ জুন ২০১৯। ৩ আষাঢ় ১৪২৬। ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

মাইগ্রেশন মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড ২০১৮ পেলেন হাসান আহমেদ কিরণ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২১ মে, ২০১৯ ১৭:১২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মাইগ্রেশন মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড ২০১৮ পেলেন হাসান আহমেদ কিরণ

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম এমপি’র কাছ থেকে অভিবাসন মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করছেন শ্রম অভিবাসন বিশ্লেষক হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ।

অভিবাসন ইস্যু নিয়ে অনুসন্ধানী ও বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার স্বীকৃতি হিসেবে ব্র্যাকের মাইগ্রেশন মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড ২০১৮ এ জাতীয় সংবাদপত্রের নিবন্ধ ক্যাটাগরিতে ১ম পুরস্কার লাভ করেছেন শ্রম অভিবাসন বিশ্লেষক হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ। তার লেখা একটি জাতীয় দৈনিকে নিরাপদ অভিবাসন শীর্ষক একটি বিশেষ প্রবন্ধের জন্য এই পুরস্কার পান তিনি। 

এ বছর সাতটি ক্যাটাগরিতে সংবাদপত্র, টেলিভিশন, রেডিও, ফিচার, অনলাইনের জন্য ১৩ জন সাংবাদিকে এ অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়। ব্র্যাক সেন্টাওে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে পররাষ্ট প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম এমপি সাংবাদিকদের এই পুরস্কার তুলে দেন। অনুষ্ঠানে অভিবাসন খাতে গণমাধ্যমের ভূমিকা বিষয়ে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে অন্যান্যে মধ্যে বক্তব্য রাখেন ডেলিগেশন অব ইউরোপীয়ান ইউনিয়ন (ইইউ) টু বাংলাদেশ’র কো-অর্ডিনেশন প্রধান (ভারপ্রাপ্ত) ডুয়্যর্ট বোস, আন্তজার্তিক অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) এর বাংলাদেশ মিশনের প্রধান গিওরগি গিগাওরি, ব্র্যাকের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ, মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের হেড শরিফুল ইসলাম হাসান প্রমূখ। 

পুরস্কারপ্রাপ্ত অন্যান্য সাংবাদিকরা হচ্ছে সংবাদপত্র ক্যাটাগরিতে দ্য নিউ এইজ’র মুহাম্মদ ওয়াসিম উদ্দিম ভূঁইয়া, ডেইলি স্টারের পরিমল পালমা এবং দ্য ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেস’র আরাফাত আরা ও সিলেট ভিত্তিক দৈনিক জালালাবাদের মো. শাফী চৌধুরী। টেলিভিশন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছেন ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির মেজবাহুল ইসলাম, বাংলাভিশনের মিরাজ হোসেন গাজী, চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের মোর্শেদ আমিন। রেডিও ক্যাটাগরিতে পুরস্কার জিতেছেন বাংলাদেশ বেতারের উপ-আঞ্চলিক পরিচালক মো. মোস্তাফিজুর রহমান। অনলাইন ক্যাটাগরির পুরস্কারজয়ীরা হলে প্রিয় ডটকম’র মো. ইমরুল কায়েস, বিডিনিউজ টেয়েন্টিফোর ডটকম’র আবদুল্লহ আল হোসাইন এবং বাংলাট্রিবিউন’র সাদ্দিফ সোহরাব। 

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তার বক্তব্যে সম্প্রতি ভূমধ্য সাগরে ঘটে যাওয়া দুর্ঘটনা বাংলাদেশি নাগরিকদের নিহত হওয়ার ঘটনাকে অত্যন্ত দুঃখজনক বলে অভিবাসন প্রক্রিয়াকে অত্যন্ত জটিল প্রক্রিয়া হিসেবে তিনি উল্লেখ করেন। 

তিনি বলেন, দালালদের মুখরোচর মিথ্যা আশ্বাসে অনেক নিরিহ মানুষকে বিদেশ যাওয়ার জন্য প্রাণ দিতে হচ্ছে। বর্তমান সরকার অনিরাপদ অভিবাসনের ব্যাপারে জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করেছে। প্রবাসী কর্মীদের সমস্যা দূরিকরণে সরকার খুব দ্রুতই ১০ বছর মেয়াদী ইলেক্টনিক পাসপোর্ট প্রদান করতে যাচ্ছে। অনিরাপদ বিধায় লিবিয়ায় কর্মী পাঠানো বন্ধ রাখা হয়েছে। স্টেক হোল্ডারদের সাথে নিয়ে সরকার নতুন শ্রমবাজার খোজার প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা