kalerkantho

রবিবার । ২৬ মে ২০১৯। ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২০ রমজান ১৪৪০

‘আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী, আইনজীবী, আদালতও কেনা যায়’

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ মে, ২০১৯ ২৩:১৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী, আইনজীবী, আদালতও কেনা যায়’

বাংলাদেশে পয়সা দিয়ে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, আইনজীবী এমনকি আদালতও কেনা যায় বলে মন্তব্য করেছেন ১৪ দলের মুখপাত্র ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিম।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস’ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘এই দেশে তো আপনি দেখবেন পয়সা দিয়ে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কেনা যায়, পয়সা দিয়ে এমনকি আইনজীবী কেনা যায়, এমনকি অনেক আদালত কেনা যায় পয়সা দিয়ে এদেশে।’

নারী নির্যাতন, ধর্ষণ, শিশু হত্যার মতো অপরাধ দমনে বিশেষ ট্রাইব্যুনাল করার পরামর্শ দিয়ে নাসিম বলেন, ‘এই সামাজিক অপরাধগুলো বন্ধ করার জন্য আজকে দৃষ্টান্তমূলক একটা ব্যবস্থা নিতে হবে। বিচার শুধু নয়, শাস্তি দেখতে চায় মানুষ, যেকোন উন্নত দেশে দেখবেন শাস্তি যখন নিশ্চিত করা হয় সেখানে অপরাধ কমে যায়। একটা বিশেষ ট্রাইব্যুনাল করে এই ধরনের ক্রিমিনালদের দ্রুত বিচার করেন।’

‘এই ক্রিমিনালরা আমাদের ব্যাধি হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিএনপি জামায়াতের চাইতেও ভয়ংকর হচ্ছে এই সমস্ত ক্রিমিনালরা। এই ক্রিমিনালদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেন, দেখবেন আওয়ামী লীগকে ক্ষমতা থেকে সরানোর মতো কেউ বাংলাদেশে আসবে না।’

আওয়ামী লীগের এ শীর্ষ নেতা আরো বলেন, ‘অনেক সফলতা আছে এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নাই। সব বিষয়ে আমরা সফল হয়েছি। কিন্তু একটি বিষয় আমাদের গভীরভাবে উদ্বিগ্ন করে। এই যে ক্রমাগত, প্রতিদিন প্রায় আমরা দেখি এই যে নারী নির্যাতন, ধর্ষণ, শিশু হত্যা এগুলো আমাদের গভীরভাবে উদ্বিগ্ন করে আমাদের। যেহেতু আমরা সরকারে আছি।’

‘আমরা সরকারে আছি বলে আমাদের প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়। একটি সরকার যখন ক্ষমতায় থাকে তখন কে কী কারণে আজকে- সিরিজ এই ধরনের ঘটনা ঘটছে। সিরিজ নাশকতা ঘটছে। এই ক্রিমিনালরা প্রকাশ্য দিবালোকে এই ধরনের ঘটনাগুলো ঘটাচ্ছে।’ 

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘এখানে একটি কথা স্পষ্ট বলতে চাই। যদি একাত্তরের ঘাতকদের যদি ট্রাইব্যুনাল করে বিচার করতে পারেন, যে কারণে মানুষ খুশি হয়েছে, মানুষ স্বস্তি পেয়েছে। আজকে কেন একট‍া বিশেষ ট্রাইব্যুনাল করে... তাৎক্ষণিকভাবে শাস্তি দেওয়া হয় তখন দেখবেন অপরাধ কমে আসবে।’

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ নেতা মোজাফফর হোসেন পল্টু, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের প্রতিষ্ঠাকালীন সাধারণ সম্পাদক অভিনেত্রী সারা বেগম কবরী প্রমুখ।

মন্তব্য