kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ মে ২০১৯। ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৫ রমজান ১৪৪০

ট্রেনের 'বায়ো-টয়লেট' এ যেসব জিনিস ফেলবেন না

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ১৮:১২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ট্রেনের 'বায়ো-টয়লেট' এ যেসব জিনিস ফেলবেন না

আজ উদ্বোধন হওয়া ঢাকা-রাজশাহী বিরতিহীন 'বনলতা এক্সপ্রেস' এ যুক্ত হয়েছে বায়ো-টয়লেট। ছবি : বাংলাদেশ রেলওয়ে গ্রুপ

দেশে প্রথমবারের মতো ঢাকা-রাজশাহী বিরতিহীন 'বনলতা এক্সপ্রেস' ট্রেনে যুক্ত হয়েছে অত্যাধুনিক বায়ো টয়লেট। এর ফলে মল-মূত্র আর রেললাইনে পড়বে না। ট্রেন স্টেশনে থাকা অবস্থাতেও ব্যবহার করা যাবে। ট্রেনের টয়লেট থাকবে সুন্দর পরিপাটি এবং পরিবেশবান্ধব। কিন্তু জাতি হিসেবে আমরা যেমন অলস, তেমনি নোংরা। এর প্রমাণ পাওয়া যায় গত কয়েক বছর নতুন আমদানিকৃত রেলকোচগুলোর দুরাবস্থা থেকে। টয়লেটের অবস্থাও ভয়াবহ পর্যায়ে চলে গেছে।

নতুন সংযোজিত বায়ো-টয়লেট ট্রেন যাত্রাকে আরও আরামদায়ক করে দেবে। তবে এজন্য যাত্রীদেরকেও দায়িত্ব পালন করতে হবে। যেকোনো কিছু ব্যবহার করে এদিক-ওদিক ছুড়ে ফেলা বেশিরভাগ বাংলাদেশিদের অভ্যাস। এজন্য পরিবেশ যেমন দূষিত হয়, তেমনই আবর্জনা ছড়িয়ে সৌন্দর্য নষ্ট করে। বায়ো-টয়লেটে কিন্তু সব ধরনের বর্জ্য ফেলা যাবে না। এ বিষয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ের পক্ষ থেকে যাত্রীদের সচেতন করতে কিছু দিকনির্দেশনা দেওয়া আছে। এক নজরে দেখে নিন সেসব দিক নির্দেশনা।

রেলওয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী ট্রেনের বায়ো-টয়লেটে পানির বোতল, পলিথিন ব্যাগ, চায়ের কাপ, যেকোনো কোমল পানীয়ের ক্যান, স্যানিটারি ন্যাপকিন কোনো অবস্থাতেই বায়ো-টয়লেটে ফেলা যাবে না। এসব ব্যবহৃত বর্জ ফেলার জন্য নতুন এসব ট্রেনে ডাস্টবিন দেওয়া আছে। বগির ভেতরে এবং টয়লেটে- উভয় স্থানেই এসব ময়লার ঝুড়ি থাকে। সুতরাং 'বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ- বদলে ফেলুন অভ্যাসটা' রেলের এই স্লোগানেই হোক যাত্রীদের মানসিকতা বদলের শুরু। 

বায়ো-টয়লেটে ডাস্টবিনের আবর্জনা না ফেলতে রেলওয়ের প্রচার। ছবি : বাংলাদেশ রেলওয়ে গ্রুপ

মন্তব্য