kalerkantho

সোমবার । ২০ মে ২০১৯। ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৪ রমজান ১৪৪০

টাঙ্গাইলে যুবলীগের দুই নেতা হত্যা মামলা

সাবেক সাংসদ রানার জামিন স্থগিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ১৭:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাবেক সাংসদ রানার জামিন স্থগিত

টাঙ্গাইলের যুবলীগের দুই নেতা হত্যা মামলায় একই দলীয় সাবেক সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানাকে হাইকোর্টের দেওয়া ৬ মাসের জামিন স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগ আজ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন। 

হাইকোর্ট গত ৬ মার্চ এক আদেশে রানাকে ৬ মাসের জামিন দেন। এই জামিন স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ আবেদন করে। আজ আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. মো. বশির উল্লাহ। রানার পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট আবদুল বাসেত মজুমদার, মুনসুরুল হক চৌধুরী ও সাইদ আইহমেদ রাজা।

এর আগে আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতির আদালত গত ১৪ মার্চ এক আদেশে রানার জামিন ৪ সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেন এবং রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের ওপর আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠিয়ে দেন। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের ওপর শুনানি হয়।

টাঙ্গাইল সদর উপজেলার বাঘিল ইউনিয়ন যুবলীগের নেতা শামীম ও মামুন ২০১২ সালের ১৬ জুলাই টাঙ্গাইল শহর থেকে নিখোঁজ হন। ঘটনার পরদিন শামীমের মা আছিয়া খাতুন এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। একবছর পর ২০১৩ সালের ৯ জুলাই নিখোঁজ মামুনের বাবা টাঙ্গাইল আদালতে হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় গ্রেপ্তার শহরের বিশ্বাস বেতকা এলাকার খন্দকার জাহিদ গতবছর ১১ মার্চ, শাহাদত হোসেন ১৬ মার্চ এবং হিরন মিয়া ২৭ এপ্রিল আদালতে শামীম ও মামুনকে অপহরণ ও হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেন। এমপি রানার নির্দেশে শামীম ও মামুনকে হত্যা করে লাশ নদীতে ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছিল বলে তারা স্বীকার করে।

এছাড়াও রানার বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলা নিম্ন আদালতে বিচারাধীন। এই মামলায় তাকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন বহাল রাখেন আপিল বিভাগ।

মন্তব্য