kalerkantho

সোমবার । ২০ মে ২০১৯। ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৪ রমজান ১৪৪০

গয়েশ্বরের চোখে খালেদা জিয়ার ব্যর্থতা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ এপ্রিল, ২০১৯ ১৯:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গয়েশ্বরের চোখে খালেদা জিয়ার ব্যর্থতা

কারাবন্দি বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার একটি ব্যর্থতার কথা উঠে আসল দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের মুখে। আজ শুক্রবার রাজধানীতে খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড নিয়ে প্রকাশিত একটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, খালেদা জিয়া বিএনপির মধ্যে সৎ, নির্ভীক ও সাহসী লোক তৈরি করতে পারেননি। এটাই তার সবচেয়ে বড় ব্যর্থতা হিসেবে তুলে ধরেন গয়েশ্বর।

বিএনপির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারকদের অন্যতম এই নেতা বলেন, এই ব্যর্থতার কথাটি তিনি আগেও খালেদা জিয়াকে বলেছেন। খালেদা জিয়ার চারপাশে থাকা মানুষগুলোর মধ্য থেকে সৎ পরামর্শ দেওয়ার মতো লোক তৈরি হয়নি বলেও জানান তিনি। এ কারণেই বিএনপির নেতারা সংকট মোকাবিলা করতে ভয় পাচ্ছেন। আর সেই সুযোগ নিয়ে সরকার খালেদা জিয়াকে প্যারোলে মুক্তি নেওয়ার ব্যাপারে উস্কানি দিচ্ছে।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে বিএনপির ৬ প্রার্থী নির্বাচিত হলেও তারা এখনো শপথ নেননি। শোনা যাচ্ছে, অনেকেই শপথ নিতে আগ্রহী। এ বিষয়ে গয়েশ্বর বলেন, 'বিএনপির নির্বাচিতরা বলছেন, জনগণের ইচ্ছে, সংসদে যেতে তাদের চাপ আছে। সুতরাং দল বললে তারা প্রস্তুত এবং তাদের কাপড়-চোপড়ও প্রস্তুত রয়েছে। আমরা আশা করেছিলাম, তারা বলবেন দল বললে আমরা যাব, অন্যথায় যাব না। খালেদা জিয়া মুক্তি পেলে আমরা সংসদে যাব, অন্যথায় যাব না। এই কথাগুলো শুনতে চেয়েছিলাম।'

দুর্নীতির মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ১৪ মাস ধরে কারাগারে আছেন। এই সময়ের মধ্যে তার মুক্তির দাবিতে বিএনপি বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে। তবে এসবে কার্যকর কোনো প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়নি। অতঃপর খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি তুলেই বিএনপি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়। যথারীতি ভরাডুবি হয় তাদের। উল্টো আন্দোলনের ধরন, ঐক্যফ্রন্টের অধীনে নির্বাচনের যাওয়াসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দলটির নেতা-কর্মীদের মাঝে অসন্তোষ জন্ম নেয়।

এমন পরিস্থিতিতে গয়েশ্বর রায়ের মন্তব্যে অনুষ্ঠানে উপস্থিত বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। অনুষ্ঠান শেষে গণমাধ্যমের কাছে 'ভুল কিছু বলিনি' বলে মন্তব্য করেন গয়েশ্বর রায়।

মন্তব্য