kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৪ রবিউস সানি     

দিল্লিতে কর্মশালায় স্পিকার

অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার জন্যে আইএমএফ’র ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ মার্চ, ২০১৯ ১৭:৫৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার জন্যে আইএমএফ’র ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ

অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার জন্য আইএমএফ’র ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেছেন, অর্থবাজার উন্নয়নের মাধ্যমে সামষ্টিক অর্থনীতিকে নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষেত্রে আইএমএফ নীতি ও কৌশল গ্রহণ করে থাকে। সংসদ সদস্যদের ওই সকল নীতি ও কৌশল সম্পর্কে জানা প্রয়োজন।

আজ মঙ্গলবার ভারতের রাজধানী দিল্লিতে আইএমএফ-সাউথ এশিয়া রিজিওনাল ট্রেনিং অ্যান্ড টেকনিক্যাল এসিস্ট্যান্স সেন্টার (এসএআরটিটিএসি) আয়োজিত দুই দিনব্যাপী কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে তিনি একথা বলেন। ‘বিল্ডিং ম্যাক্রো ইকোনমিক ক্যাপাসিটি ইন সাউথ এশিয়া’ শীর্ষক কর্মশালার শুরুতে বাংলাদেশের ৪৮তম স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে আইএমএফ-সার্টটেকের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলসহ বাংলাদেশের সকল স্তরের জনগণকে শুভেচ্ছা জানানো হয়। এসময় বাংলাদেশ ছাড়াও ভারত, শ্রীলংকা, নেপাল ও ভূটানের সংসদ সদস্যসহ আইএমএফ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, আইনসভা (জাতীয় সংসদ) হচ্ছে প্রতিনিধিত্বমূলক প্রতিষ্ঠান- যেখানে জনগণের পক্ষে অর্থনৈতিক ও আর্থিকসহ সকল বিষয়ে আলোচনা করা যায়। আর সংসদ সদস্যগণ নির্বাচিত প্রতিনিধি হিসেবে জনগণের পক্ষে ভূমিকা পালন করে থাকেন। কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী সংসদ সদস্যরা আইএমএফ’র কার্যপরিধি ও কর্মপদ্ধতি সম্পর্কে সম্যক ধারনা পাবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

দুই দিনের কর্মশালা সঞ্চালনা ও প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এসএআরটিটিএসি ’র পরিচালক সুখেন্দার সিং। সেখানে অন্যান্য দেশের প্রতিনিধিরা ছাড়াও জাতীয় সংসদের অনুমিত হিসাব কমিটির সভাপতি মো. আব্দুস শহীদ, সরকারী হিসাব কমিটির সভাপতি মো. রুস্তম আলী ফরাজী এবং সংসদ সদস্য সাগুফতা ইয়াসমিন, আনোয়ারুল আবেদীন খান ও আহসানুল ইসলাম (টিটু) অংশ নেন।

উল্লেখ্য, উক্ত কর্মশালায় অংশ নিতে স্পিকারের নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দল গত সোমবার ঢাকা ত্যাগ করেন। কর্মসূচী শেষে তাদের ২৮ মার্চ দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা