kalerkantho

শনিবার । ২৪ আগস্ট ২০১৯। ৯ ভাদ্র ১৪২৬। ২২ জিলহজ ১৪৪০

ভারতের বাণিজ্যমন্ত্রীর ভোলা সফর

ভোলা প্রতিনিধি    

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৭:০৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভারতের বাণিজ্যমন্ত্রীর ভোলা সফর

ভোলা সফর করেছেন ভারতের কেন্দ্রীয় বাণিজ্য ও শিল্প এবং বেসামরিক বিমানমন্ত্রী সুরেশ প্রভু। বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের আমন্ত্রণে আজ মঙ্গলবার (২৫ সেপ্টেম্বর) দিনব্যাপী এই সফরে আসেন তিনি।

সফরকালে ভোলার বাংলাবাজারের স্বাধীনতা যাদুঘর পরিদর্শন করেন সুরেশ প্রভু। এ সময় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর, বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত হর্ষবর্ধন শ্রিংলা, ক্যাপ্টেন এ বি এম তাজুল ইসলাম (অব.) এমপি, স্কয়ার গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তপন চৌধুরী, ইসলাম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনজুরুল ইসলাম, বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নইম নিজাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অতিথিরা ভোলায় পরিচালিত ফাতেমা খানম বৃদ্ধাশ্রম, ফাতেমা খানম কলেজ ও আজাহার-ফাতেমা খানম মেডিক্যাল কলেজও পরিদর্শন করেন।

দুপুরে বাংলাবাজার ফাতেমা খানম ডিগ্রি কলেজ মিলনায়তনে ভোলা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির আয়োজনে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সুরেশ প্রভু বলেন, বাংলাদেশ একটি সুন্দর দেশ। এদেশের গ্রামীণ অর্থনীতিতে যে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে তা নিজ চোখে না দেখলে বোঝানো যাবে না। আমি সত্যিই আনন্দিত। আমি মোদি সরকারে আছি। ভারতের সরকার উল্লেখ করেছে বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য চুক্তি হচ্ছে সোনালি চুক্তি।

সুরেশ প্রভু বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের অনেক শহরের ট্রেনের যোগাযোগ রয়েছে। ঢাকা জয়দেবপুর রেললাইন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশ-ভারত উভয়ই উন্নয়নশীল দেশ। তিনি বলেন, ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধের আগে ৫২ সালে ভাষার জন্য সংগ্রাম করেছিলেন বঙ্গবন্ধু। তিনি ইন্দিরা গান্ধির সঙ্গে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে মৈত্রী চুক্তি করেছিলেন।

সভায় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু দেশ পুনর্গঠনের কাজ শূন্য হাতে শুরু করেছিলেন। বাজেট ছিল খুবই সীমিত। স্বাধীনতা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে আমরা অঙ্গীকারাবদ্ধ। তিনি বলেন, তিন মাস পর আমাদের জাতীয় নির্বাচন। এ নির্বাচন নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হবে।

ভোলা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি আবদুল মোমিন টুলুর সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত শ্রী হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা