kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

স্মরণসভায় প্রধান বিচারপতি

সন্তানের কাছে পিতার মৃত্যু অনেক কষ্টের

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ জুলাই, ২০১৮ ০৩:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সন্তানের কাছে পিতার মৃত্যু অনেক কষ্টের

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, প্রত্যেক সন্তানের কাছে তার পিতার মৃত্যু অনেক কষ্টের। বেশি বয়সে মারা গেলেও সেটা সন্তানের জন্য কষ্টকর। আমার পিতা আমার জন্য ছায়া ছিলেন। তিনি আমার অভিবাবক ও গাইড ছিলেন। তার মৃত্যুতে আমার মাথার ওপর থেকে ছায়া চলে গেছে। 

সদ্য প্রয়াত পিতা অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোস্তফা আলীর স্বরণসভা ও দোয়া মাহফিলে এ কথা বলেন প্রধান বিচারপতি। গত ২৬ জুন ৯৪ বছর বয়সে মারা যান সৈয়দ মোস্তফা আলী। তিনি জাতীয় আইনজীবী সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও কুমিল্লা জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ছিলেন। 
বাংলাদেশ জাতীয় আইনজীবী সমিতি তাঁর মৃতুতে এ স্বরণসভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে। 

সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি অ্যাডভোকেট শাহ মো. খসরুজ্জামানের সভাপতিত্বে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত স্বরণসভা ও দোয়া মাহফিলে ড. কামাল হোসেন, ব্যারিষ্টার এম আমীর-উল ইসলাম, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু, অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন বক্তব্য রাখেন। 

ড. কামাল হোসেন বলেন, সৈয়দ মোস্তফা আলী একজন ভাগ্যবান পিতা ছিলেন। কারণ তিনি বেঁচে থাকতেই দেখে গেছেন যে তার সন্তান দেশের প্রধান বিচারপতি পদে আসীন হয়েছেন।

ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেন, একজন সফল পিতা তার সন্তানদের সঠিকভাবে লালন-পালন করে থাকেন। সৈয়দ মোস্তফা আলীও তেমনই ছিলেন। কারণ তিনি তার সন্তানদের প্রতিষ্ঠিত করে গেছেন। অপরাপর বক্তারা মরহুমের কর্মময় জীবন সংক্ষিপ্তভাবে তুলে ধরেন। আলোচনা শেষে মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা