kalerkantho

বুধবার । ২১ আগস্ট ২০১৯। ৬ ভাদ্র ১৪২৬। ১৯ জিলহজ ১৪৪০

দুর্গন্ধ আর পচন নিয়ে বিনা চিকিৎসায় পড়ে আছেন হাছনা বেগম

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ মার্চ, ২০১৮ ১৮:১৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দুর্গন্ধ আর পচন নিয়ে বিনা চিকিৎসায় পড়ে আছেন হাছনা বেগম

মাত্র একটি শব্দ 'দুর্গন্ধ' আর পচন নিয়ে বিনা চিকিৎসায় পড়ে আছেন হাছনা বেগম। কেউ যায় না, তার কাছে খেয়ে না খেয়ে অসহায় ভাবে চলছে তার জীবন। আমরা কি পারবো হাছনাকে মুক্তি দিতে?

দুর্গন্ধ আর পচন থেকে বেঁচে থাকার জন্য প্রাণপন যুদ্ধ করে যাচ্ছেন আজও। থেমে যাওয়ার শঙ্কা তার মধ্যে বিন্দু মাত্র নেই।

সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর উপজেলার হাব্বিউল্লাহ নগর ইউনিয়নের ইসলামপুর (ডায়া) গ্রামের মৃত বাবু শেখের স্ত্রী হাছনা বেগম।

৩৫ বছর আগেই যৌবনের সময় স্বামীর মৃত্যু হয়েছে। ছোট ছোট ২ ছেলে মেয়ে নিয়ে জীবন যুদ্ধ করে চালিয়ে এলেও এখন নিজের অসুস্থ তার কাছে হারিয়ে গেছে হাছনা বেগম।

৪ বছর আগে বুকের উপর একটা গোটা হয় সেখান থেকে সুত্রপাত্র এই রোগের। প্রাথমিক ভাবে টাকা না থাকায় এলাকার ডাক্তারের কাছে অপারেশন করান হাছনা ৬ মাস যেতে অবস্থার খারাপ হতে থাকে।

কিছুদিন পর এনায়েতপুর একটি বেসকারি হাসপাতালে অপারেশন করেন। কিন্ত দিন দিন অবস্থার অবনতি হাছনার। এখন টাকা না থাকায় বাড়িতে পড়ে আছে হাছনা।

বুকের স্তনের সাইট উপরে পচে দুর্গন্ধ কেউ কাছে আসে না। হাছনা বাহিরে যায় না কারন তাকে দেখলে ঘৃণা করে সবাই।

হাছনার ছেলে হাসেম শেখ জানান, আমি একা তাঁতের কাজ করে ৬ জনের সংসার চালাতে পারি না। সেখানে কিভাবে চিকিৎসা করাবো।

আমার খুব কষ্ট হয় মাকে দেখে কেউ আমার মায়ের কাছে আসে না। সব সময় একা একা থাকে।সরকারী ভাবে যদি আমার মায়ের চিকিৎসা হয় তাইলে খুব উপকার হতো আমাদের।

হাছনা বেগম জানান, আমি বাঁচতে চাই আমার পাশে সবাই দাঁড়ান। আমার খুব কষ্ট হয় এই অবস্থায় থেকে।

আসুন সবাই মিলে হাছনা কে বাঁচাতে এগিয়ে আসি পাশাপাশি সরকারী ভাবে হাছনার চিকিৎসার ব্যবস্থা করি। যোগাযোগ : হাছনার ছেলে হাসেম শেখ ০১৭৬৬-৮৮০৭৮০, ০১৭৬৬-৮৮০৭৮০( বিকাশ পারসোনাল)

মামুন বিশ্বাসের ফেসবুক থেকে

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা