kalerkantho

বুধবার । ১২ মাঘ ১৪২৮। ২৬ জানুয়ারি ২০২২। ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

যেভাবে ইসলাম গ্রহণ করলেন কানাডার তরুণ

মুহাম্মাদ হেদায়াতুল্লাহ   

২ ডিসেম্বর, ২০২১ ১৬:০৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



যেভাবে ইসলাম গ্রহণ করলেন কানাডার তরুণ

অ্যারোন ওয়ানাম্যাকার।

কানাডার বিভিন্ন শহরের অনেকে ইসলাম গ্রহণ করেছেন। নানা কারণে ইসলম গ্রহণ করলেও সবাই এর সৌন্দর্যে মুগ্ধ। এডমন্টন শহরের তরুণের ইসলাম গ্রহণের গল্প নিয়ে ভিডিওচিত্র তৈরি করেছেন সংবাদ মাধ্যম সিবিসি। সম্প্রতি আনোস ফেইথ ইন ইসলাম নামে একটি শর্টফিল্মে তা তুলে ধরা হয়।

বিজ্ঞাপন

অ্যারোন ওয়ানাম্যাকার ২০০৭ সালে ইসলাম গ্রহণ করেন। তার ইসলাম গ্রহণের প্রেক্ষাপট ছিল অন্য রকম। ইসলাম সম্পর্কে আগে তার তেমন জানাশোনা ছিল না। তার বান্ধবীর অফিসের বস ছিলেন একজন ধার্মিক মুসলিম। বসের দেওয়া ইসলামের প্রাথমিক পরিচিতিমূলক বই নিয়ে ঘরে আসেন তার বান্ধবী।

এদিকে অ্যারোন আগ্রহভরে পুরো বই পড়েন। ইসলাম সম্পর্কে অনেক কিছুই জানতে পারেন তিনি। বইটি পড়ার তিন মাসের মধ্যে তিনি ইসলাম গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেন। এরপর বদলে যায় তার জীবন।

সিবিসি এডমন্টনের রেডিও এক্টিভকে আরোন জানিয়েছেন, ‘আমি খুবই শান্তিপ্রিয় ব্যক্তি। তখনও আমার কোরআন পাঠ শেষ হয়নি। এমনকি মসজিদের মধ্যে কখনো পা রাখারও সুযোগ হয়নি। তবে মুসলিম হওয়ায় অনেক ভুল ধারণার মোকাবেলা করতে হয়েছিল বলে জানান তিনি। ’

খুবই ধার্মিক না হলেও অ্যারোন খ্রিস্টান ও এক স্রষ্ঠায় বিশ্বাসী ছিলেন। অ্যারোন বলেন, ‘আমি খুবই অবাক হই যখন জানতে পারি যে মুসলিমরা যা বিশ্বাস করে আমি এর আগেই তাতে বিশ্বাসী ছিলাম। ’

অ্যারোনের ইসলাম গ্রহণের সিদ্ধান্তে তার পরিবার খুবই আঘাত পায়। তবে তার বাবা-মা তার সিদ্ধান্তের বিষয়ে সহযোগী ছিলেন। এমনকি তার বাবা গাড়ি চালিয়ে তার জন্য লিডুক থেকে শহর থেকে হালাল খাবার সংগ্রহ করতে আনতেন।

অ্যারোন জানান, বিশ্বের দ্বিতীয় সংখ্যাগরিষ্ঠ ধর্ম ইসলাম। তদুপরি ইসলাম সম্পর্কে অধিকাংশ লোকের মারাত্মক ভুল ধারণা রয়েছে। তিনি বলেন, ‘ইসলাম সম্পর্কে আমি যত জানতে পারি, আমি  এর বৈশ্বিক বিস্তৃতি দেখে ততো বেশি অবাক হই। ’ 

অ্যারোন বলেন, ‘অনেকের মতো কানাডার অনেক লোক মনে করেন যে ইসলাম মধ্যপ্রাচ্যের জনপ্রিয় একটি ধর্ম। অথচ অনেকে জানেন না যে বর্তমানে ইন্দোনেশিয়ায় সবচেয়ে বেশি মুসলিম বসবাস করেন। আপনি বিশ্বের যেখানেই বসবাস করুন আপনি ইসলাম ধর্ম অনুশীলন করতে পারবেন। কারণ তা অনুশীলনের ধর্ম। ’

অ্যারোনের মতো বিশ্বের অসংখ্য মুসলিম দেখতে পেয়ে নিজেকে একতাবদ্ধ বলে মনে করেন। মুসলিম জনগোষ্ঠীর সঙ্গে যুক্ত হয়ে অ্যারোন নিজের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বলেন, ‘বিশ্বের মুসলিমদের ঘটনা শুনে আমি বুঝতে পেরেছি যে সব মুসলিমের একটি অনন্য গল্প আছে। ’ 

কানাডার ধর্মীয় জনগোষ্ঠীর পরিসংখ্যান অনুসারে ১৯৯৬ সালের পর থেকে দেশটিতে মুসলিমদের সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে। বর্তমানে কানাডায় ১০ লাখ ৫৩ হাজার ৯৪৫জন মুসলিম বসবাস করেন।  

সূত্র : সিবিসি



সাতদিনের সেরা