kalerkantho

শনিবার । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৭ নভেম্বর ২০২১। ২১ রবিউস সানি ১৪৪৩

সন্তানের কবর রক্ষায় ফিলিস্তিনি মায়ের আকুতি

অনলাইন ডেস্ক   

২৭ অক্টোবর, ২০২১ ১৮:৪২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সন্তানের কবর রক্ষায় ফিলিস্তিনি মায়ের আকুতি

ইসরায়েলের দখলদারিত্ব থেকে রক্ষা করতে নিজ সন্তানের কবর আঁকড়ে ধরে রাখেন এক ফিলিস্তিনি নারী। এ সময় কবরের পাশ থেকে ওই নারীকে সরিয়ে দেয়  ইসরায়েলি সেনারা। ঘটনার ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সাড়া ফেলে। সোমবার (২৫ অক্টোবর) পূর্ব জেরুজালেমের আল ইউসুফিয়া কবরস্থানে এ ঘটনা ঘটে। 

ইসরায়েলি পুলিশের প্রাচীন কবর খোঁড়ার খবর পেয়ে ৫৪ বছর বয়সী ফিলিস্তিনি নারী আলা নাবাবতা কবরস্থানে পৌঁছেন। পুলিশ নাবাবতাকে সরানোর চেষ্টা করলে তিনি সন্তানের কবরের কাছে এসে বলতে থাকেন, ‘আমাকে এখানে কবর দাও। শুধুমাত্র আমার মৃতদেহের ওপর দিয়েই তোমরা আমার ছেলের কবর খুঁড়তে পারবে। 

আনাদোলু এজেন্সিকে নাবাবতা জানান, চার বছর আগে তার সন্তান মারা যায়। কিন্তু এরপর থেকে তাকে সব সময় দুশ্চিন্তায় সময় পার করতে থাকেন। গত দুই মাস যাবত ইসরায়েলি দখলদার বাহিনী কবরস্থানকে বুলডজোর দিয়ে সমতল করার হুমকি দিয়ে আসছে। 

ইসরায়েলি মিউনিসিপ্যালিটি ক্রু ও ইসরায়েলের জাতীয় প্রকৃতি বিষয়ক কর্তৃপক্ষ একটি ইহুদি পার্ক প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দেয়। পার্ক প্রতিষ্ঠা করতে পবিত্র আল আকসা মসজিদের কাছের আল ইউসুফিয়া কবরস্থান ধ্বংসে নতুন করে অভিযান শুরু করে।

কয়েক শতাব্দি যাবত এখানে অনেক ফিলিস্তিনির আত্মীয়-স্বজনদের কবর দেওয়া হয়। নিজেরদের পূর্বপুরুষদের কবর ধ্বংসের আশংকায় আত্মীয়-স্বজনরা প্রতিদিন কবরস্থানে ভিড় জমায়। আল ইউসুফিয়া কবরস্থানটি অধিকৃত জেরুজালেমের সবচেয়ে প্রাচীন কবরস্থান। ইতিমধ্যে এখানকার অনেক কবর উচ্ছেদ করে। 

নাবাবতা বলেন, ‘ইসরায়েলি দখলদার বাহিনী ফিলিস্তিনিদের জীবিত হোক বা মৃত হোক তাড়া করে ফিরছে। এটাই তো আমাদের কবরস্থান। এখান থেকেও উচ্ছেদ হলে আমরা কোথায় দাফন করব? কবরস্থান উচ্ছেদ হওয়ার ভয়ে আমরা প্রতিদিন এখানে আসি। একজন মায়ের অনুভূতি কেমন হতে পারে যখন আমি আমার সন্তানের কবরকে ভেঙে ফেলতে দেখব। নিঃসন্দেহে এসব দৃশ্য আমাদের দুঃখ-বেদনাকে আরো বাড়িয়ে দেবে।’

১৯৬৭ সালে আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের সময় ইসরায়েল পূর্ব জেরুজালেম দখল করে। ১৯৮০ সালে পুরো শহর দখলদারিত্বের সঙ্গে সংযুক্ত করে। 

সূত্র : আনাদোলু এজেন্সি



সাতদিনের সেরা