kalerkantho

শনিবার । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৭ নভেম্বর ২০২১। ২১ রবিউস সানি ১৪৪৩

যেভাবে দুবাই প্রদর্শনীতে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্টের ব্যবহৃত কোরআনের অনুবাদ

অনলাইন ডেস্ক   

১১ অক্টোবর, ২০২১ ১৫:৩০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যেভাবে দুবাই প্রদর্শনীতে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্টের ব্যবহৃত কোরআনের অনুবাদ

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট টমাস জেফারসনের ব্যবহৃত পবিত্র কোরআনের ঐতিহাসিক অনুবাদের কপি দুবাই এক্সপো ২০২০-এর যুক্তরাষ্ট্র প্যাভিলিয়নে এসে পৌঁছেছে। মার্কিন প্রেসিডেন্টের ব্যবহৃত কোরআনের দুর্লভ কপিটি ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত লাইব্রেরি অব কংগ্রেস থেকে আনা হয়।  

পবিত্র কোরআনের কপিটি অত্যন্ত যত্নের সঙ্গে সুরক্ষিত কাঠের বাক্সে দুবাই প্রদর্শনীতে আনা হয়। কম্পন ও তাপমাত্রা পরিবর্তন শনাক্তে তাতে সেন্সর রাখা হয়। তা ছাড়া দীর্ঘ যাত্রাপথে গ্রন্থাগার বিশেষজ্ঞ, নিরাপত্তাকর্মী ও আন্তর্জাতিক শিপিং কম্পানির বিশেষজ্ঞদল ছিল। আগামী তিন মাস পর্যন্ত দুবাই এক্সপোর প্রদর্শনীতে তা থাকবে। মধ্যপ্রাচ্যে প্রথমবারের মতো এ দুর্লভ কপি প্রদর্শনীতে রাখায় সবার মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ তৈরি হয়। 

১৭৩৪ সালে জর্জ সেল পবিত্র কোরআনের ইংরেজি অনুবাদ করেন ও একটি ভূমিকা লিখেন। দুই খণ্ডের পবিত্র কোরআনের অনুবাদটি ১৭৬৪ সালে লন্ডনে প্রথম মুদ্রিত হয়। অবশ্য ইসলামী জ্ঞানচর্চায় নিষ্ঠাপূর্ণ ভূমিকা রাখার চেয়ে প্রাচ্যবিদদের দৃষ্টিকোণ থেকে তা অনুবাদ করা হয়েছে বলে অনেকে মনে করেন।

আমেরিকান মুসলিম অ্যান্ড মাল্টিফেইথ এম্পাওয়ারমেন্ট কাউন্সিলের প্রতিষ্ঠাতা আনিলা আলী আন্তধর্মীয় প্রতিনিধিদলের হয়ে দুবাই আসেন। তিনি বলেন, ‘এটা আমার জন্য অত্যন্ত গর্বের বিষয়। যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠাতাদের অন্যতম একজনের মালিকানায় থাকা পবিত্র কোরআনের কপি বিশ্বের কাছে প্রদর্শিত হতে যাচ্ছে, যা ধর্মীয় বৈচিত্র্যের প্রতি আমেরিকার শ্রদ্ধার প্রতীক হিসেবে গণ্য হবে।’ 

টমাস জেফারসন ছিলেন রাজনীতিবিদ, কূটনীতিক, আইনজীবী, স্থপতি, সংগীতজ্ঞ, দার্শনিক ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠাতাদের অন্যতম। যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে ১৭৯০-১৭৯৩ সালে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর ১৮০১ থেকে ১৮০৯ সাল পর্যন্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তৃতীয় রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

বিশ্বের সব দেশের অত্যাধুনিক শিল্পমেলা হিসেবে ‘দুবাই এক্সপো ২০২০’ মধ্যপ্রাচ্যের প্রথম দেশ হিসেবে আরব আমিরাতে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু করে। ১৮৫১ সালে সর্বপ্রথম লন্ডনে এ মেলার যাত্রা শুরু হয়। এ বছরের প্রদর্শনীতে ১৯২টির বেশি দেশের প্যাভিলিয়ন আছে। করোনা সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ২৫ মিলিয়নের বেশি দর্শনার্থী তা দেখতে আসবে। গত বছর হওয়ার কথা থাকলেও করোনা মহামারির কারণে তা এক বছর পিছিয়ে গত ১ অক্টোবর শুরু হয়। 

সূত্র : খালিজ টাইমস। 



সাতদিনের সেরা