kalerkantho

শনিবার । ৫ আষাঢ় ১৪২৮। ১৯ জুন ২০২১। ৭ জিলকদ ১৪৪২

আজ আল কুদস দিবস

অনলাইন ডেস্ক   

৭ মে, ২০২১ ১২:২৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আজ আল কুদস দিবস

জেরুজালেমে অবস্থিত আল আকসা মসজিদের একাংশ।

আজ পবিত্র রমজান মাসের শেষ জুমা অনুষ্ঠিত হবে। এ দিনটি আল কুদস দিবস হিসেবে পালিত হয়। ১৯৭৯ সাল থেকে দিবসটি পালিত হয়ে আসছে। ইসরায়েলের দখলদারিত্বে বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনি জনগনের পাশে দাঁড়াতে এ দিনটি উদযাপিত হয়। 

এই দিবস পালনের উদ্দেশ্য হলো ফিলিস্তিনী জনগণের সাথে একাত্মতা প্রকাশ, জায়নবাদী শক্তির বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ এবং ইসরাইল কর্তৃক জেরুজালেম দখলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ। আরবিতে জেরুজালেম শহরের অপর নাম ‘আল কুদস’। ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রথম পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইবরাহীম ইয়াজদি সর্বপ্রথম আল-কুদস দিবস উপলক্ষে র‍্যালি আয়োজনের ধারণা দেন। এরপর আয়াতুল্লাহ খোমেনি ১৯৭৯ সালে ইরানে প্রথম বারের মতো তা উদযাপন করেন। পরবর্তীতে ইরানসহ বিশ্বের অনেক দেশেই তা উদযাপিত হয়ে আসছে।

ইসলামের দ্বিতীয় খলিফা উমর (রা.)-এর ৬৩৮ সালে পুরো ফিলিস্তিন বিজয় করেন। এরপর ১০৯৬ সালে ক্রুসেডাররা সিরিয়া ও ফিলিস্তিন দখল করে নেয়। পরবর্তীতে মুসলিম বীর সুলতান সালাহুদ্দীন আইয়ুবি (রহ.) ১১৮৭ সালে পুনরায় জেরুজালেম শহর মুসলমানদের অধিকারে নিয়ে আসেন।

এরপর থেকে খ্রিষ্টান ও ইহুদি চক্র ফিলিস্তিনে নিজেদের রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার অপচেষ্টা করতে থাকে। নিজেদের উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের ইহুদিরা তৎকালীন উসমানি খলিফা সুলতান আবদুল হামিদের কাছে ফিলিস্তিনে বসতি স্থাপনের অনুমতি চায়। কিন্তু সুলতান তাদের এ প্রস্তাবে রাজি হননি। 

১৯১৭ সালে ইংরেজরা ফিলিস্তিনে জোরপূর্বক অনুপ্রবেশ করে এবং ১৯২০ খ্রিষ্টাব্দে পূর্ণ কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করে। কিছুদিনের মধ্যে ইহুদিরা ফিলিস্তিনে স্থায়ীভাবে বসতি স্থাপন করে। এরপর থেকে ফিলিস্তিনের পবিত্র ভূমিতে ইহুদির সংখ্যা বাড়তে থাকে এবং হামলা-পাল্টা হামলা চলতে থাকে। ফলে এক সময় ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদীরা অন্যায়ভাবে ফিলিস্তিন ভূমিকে আরব মুসলিম ও ইহুদিদের মাঝে ভাগ করে দেয়। ফলে ১৯৪৮ সালে ১৫ মে বেলফোর ঘোষণার মাধ্যমে অবৈধভাবে ইসরায়েল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৬৭ সালে ইসরায়েল ‘মসজিদুল আকসা’সহ জেরুজালেমের পূর্বাঞ্চলের কর্তৃত্ব জবরদখল করে নেয় । 



সাতদিনের সেরা