kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

রমজানে ইন্দোনেশিয়ায় রাতব্যাপী কোরআন পাঠের ঐতিহ্য

মুহাম্মাদ হেদায়াতুল্লাহ   

১৮ এপ্রিল, ২০২১ ১৬:৫৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রমজানে ইন্দোনেশিয়ায় রাতব্যাপী কোরআন পাঠের ঐতিহ্য

ষষ্ঠদশ শতাব্দিতে নির্মিত গ্র্যান্ড মসজিদ, সেরাং সিটি, বন্টেন।

পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে পুরো বিশ্বের মুসলিমরা রমজান মাস উদযাপন করে। কিন্তু ইন্দোনেশিয়ার বন্টেন প্রদেশে রমজানে কোরআন পাঠের সংস্কৃতি আরেকটি ভিন্নতর। এ প্রদেশের মুসলিমরা নিজেদের প্রাচীন ঐতিহ্য অনুসরণ করে তারাবির পর থেকে সাহরির পর্যন্ত অবিরত কোরআন তেলাওয়াত করতে থাকে। 

ইন্দোনেশিয়ার জাভা দ্বীপের পশ্চিমাঞ্চলীয় অধিকাংশ প্রদেশে ‘মিকরান’ নামের কোরআন পাঠের এ ঐতিহ্য অদ্যবধি চালু আছে। পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের এ ঐতিহ্য বন্টেন সালতানাতের প্রাদেশিক রাজধানী সেরাংয়ে প্রথমে শুরু হয়েছিল বলে মনে করা হয়। জাভার ইসলাম প্রচারক সুনান গুনঞ্জতি ষষ্ঠদশ শতাব্দিতে শহরটি প্রতিষ্ঠা করেন। 

ধারণা করা হয় যে ‘মিকরান’ শব্দটি আরবি ভাষার একটি শব্দ। মহানবী (সা.)-এর ওপর অবতীর্ণ পবিত্র কোরআনের প্রথম শব্দ ছিল - ‘ইকরা’ তথা পড়ো। 

ষষ্ঠদশ শতাব্দিতে নির্মিত গ্র্যান্ড মসজিদ, সেরাং সিটি, বন্টেন।

বন্টেন সালতানাতের দ্বিতীয় শাসক সুলতান মাওলানা হাসানুদ্দিনের বংশধর আহমদ ফয়সাল আব্বাস এক বিবৃতিতে জানান, প্রাচীনকালে মসজিদে শব্দকরে কোরআন তেলাওয়াত করে সাহরির সময়ের সমাপ্তি অনুমান করা হতো। 

ষষ্ঠদশ শতাব্দির ওয়াকফকৃত মসজিদের দুই হেক্টর ভূমির পরিদর্শক হিসেবে আব্বাসের পরিবারের সদস্যরা দায়িত্ব পালন করেন। মসজিদের ব্যবস্থাপনা পরিষদ ‘মিকরান’ তেলাওয়াতে অংশগ্রহণে আগ্রহী তরুণদের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন। 

রমজানে রাতব্যাপী কোরআন তেলাওয়াতের ঐতিহ্য ঠিক কখন থেকে শুরু হয়েছে তা জানা যায়নি। তবে মসজিদে প্রোগ্রাম পরিচালনাকারী আব্বাস ও তাঁর ভাই টুবাগাস জানান, বেশ কয়েক প্রজন্ম ধরে মিকরানের ঐতিহ্য চলে আসছে। 

রমজানের পুরো রাতে কোরআন তেলাওয়াতের জন্য সব মসজিদে ৮ থেকে ১৬ জনকে নির্বাচন করা হয়। সুন্দর কণ্ঠে তেলাওয়াতের মাধ্যমে সবার সামনে নিজেদের যোগ্যতা ও দক্ষতা তুলে ধরার অবরিত সুযোগ পায় তরুণরা। 

বন্টেন প্রদেশের ধর্ম বিভাগীয় প্রধান লুকমানুল হাকিম বলেন, আধুনিক যুগে মসজিদে যখন মাইক্রফোনের ব্যবহার শুরু হয় তখন থেকে কোরআন তেলাওয়াতেও লাউডস্পিকার ব্যবহার করা হতো যাতে আশপাশের সবাই তেলাওয়াত শুনতে পান। 

‘মিকরান’ পদ্ধতিতে তেলাওয়াতের ঐতিহ্য স্থানীয় সব মুসলিমের মধ্যে রমজান মাসে পুরো কোরআন পাঠের অনুপ্রেরণা তৈরি করে। এমনকি অনেকে পুরো মাসে তিন বা চার বার কোরআন পড়ার সুযোগ পান। 

সূত্র : আরব নিউজ



সাতদিনের সেরা