kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৪ ফাল্গুন ১৪২৭। ৯ মার্চ ২০২১। ২৪ রজব ১৪৪২

আন্ত-ধর্মীয় সম্প্রীতি বাড়াতে

ক্যাথলিক চার্চের মুসলিম দিবস উদযাপন

অনলাইন ডেস্ক   

২৮ জানুয়ারি, ২০২১ ১০:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ক্যাথলিক চার্চের মুসলিম দিবস উদযাপন

ধর্মীয় সম্প্রীতিবোধ বৃদ্ধি করতে পোল্যান্ডের ক্যাথলিক চার্চ ২০ তম ‍মুসলিম দিবস উদযাপন করেছে। আন্ত-ধর্মীয় সাদৃশ্য ও সম্প্রীতিবোধ বাড়ানোর অংশ হিসেবে ২০০১ সালের ২৬ জানুয়ারি প্রথম মুসলিম দিবস উদযাপন শুরু হয়। 

করোনা মহামারির কারণে এ বছরের উৎসব সরাসরি না হলেও প্রথম বারের মতো অনলাইনে তা অনুষ্ঠিত হয়। ইউটিউবে অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচারিত হয়। এ বছর অনুষ্ঠানের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল, ‘খ্রিস্টান ও মুসলিম : একসঙ্গে উপাসনালয় সংরক্ষণ’। 

ক্যাথলিক কাউন্সিলের প্রধান আগাটা স্কোওরন নলবোর্কিজ এক বিবৃতিতে লিখেন, ‘আধুনিক বিশ্ব পারষ্পরিক শ্রদ্ধাবোধ থেকে দূরে সড়ে পড়ছে। বিভিন্ন দেশে গির্জা, মসজিদ বা অন্য ধর্মাবলম্বীদের উপাসনালয়ে হামলা করা হয়।’

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘এ ধরনের যেকোনো সহিংসতার বিরুদ্ধে শুধুমাত্র নিন্দা করাই যথেষ্ট নয়। বরং প্রতিবেশীদের প্রতি যারা ভালোবাসা ও শ্রদ্ধাবোধ লালন করে তাদের প্রতি সংহতি প্রকাশ করাও জরুরি। 

সংহিতার বিরুদ্ধে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে বিবৃতিতে বলা হয়, ‘খ্রিস্টান ও মুসলিমদেরকে এ ধরনের নৃশংস ঘটনার বিরুদ্ধে একসঙ্গে আওয়াজ উঁচু করতে হবে।’

পোল্যান্ডে সরকারিভাবে মুসলিম জনগোষ্ঠীর দুটি সংগঠন অনুমোদিত। ১৯২৫ সালে দ্য মুসলিম রিলিজিয়াস ইউনিয়ন নামে একটি সংস্থা অনুমোদন পায়। ২০০৪ সালে অপর সংগঠন মুসলিম লিগ ইন পোল্যান্ড অনুমোদন পায়। উভয় সংগঠনের আওতায় প্রায় ৩০ হাজার সদস্য আছে। 

পোল্যান্ডে দীর্ঘকাল যাবত মুসলিমরা বসবাস করছে। চৌদ্দদশ শতাব্দিতে তাতারদের একটি দল পোল্যান্ডের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বসবাস শুরু করে। তাতারদের আরেকটি দল বেলরুস ও লিথুয়ানিয়াতেও বসতি স্থাপন করে। 

পোল্যান্ডে তাতার জনগোষ্ঠী পোলিশ ভাষা রপ্ত করে নিজেদের কার্যক্রম বিস্তৃত করে। লাতিন এবং ইতালীয় ভাষার পরে ইউরোপের তৃতীয় ভাষা হিসেবে পোলিশ ভাষায় কোরআনের  অনুবাদ করে। পোল্যান্ডের হয়ে লড়াই করার সময় তাতারদের পৃথক একটি বিভাগ ছিল। তারা ১৯৩৯ সালের সেপ্টেম্বরে পোলিশ সেনাবাহিনীর পাশে থেকে গ্রুনওয়াল্ডের যুদ্ধ করে। 

সূত্র : দ্য ফাস্ট নিউজ

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা