kalerkantho

শনিবার । ৯ মাঘ ১৪২৭। ২৩ জানুয়ারি ২০২১। ৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

বাইডেনকে সংকট নিরসনে এগিয়ে আসার আহ্বান জর্দান ও ফিলিস্তিনের

অনলাইন ডেস্ক   

৩০ নভেম্বর, ২০২০ ১২:৪০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাইডেনকে সংকট নিরসনে এগিয়ে আসার আহ্বান জর্দান ও ফিলিস্তিনের

জর্দানের রাজা আবদুল্লাহ ও ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস

যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন নতুনকরে ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের সংকট নিরসনে কাজ শুরু করবেন আশা প্রকাশ করেছেন ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস ও জর্দানের রাজা আবদুল্লাহ।

গতকাল রবিবার (২৯ নভেম্বর) জর্দানের লোহিত সাগরের তীরবর্তী আকাবা শহরে সাক্ষাতকালে একথা বলেন ফিলিস্তিন ও জর্দানের দুই রাষ্ট্রপ্রধান। খবর রয়টার্সের।

এক বিবৃতিতে জর্দানের রাজা আবদুল্লাহ বলেন, ‘স্বাধীন রাষ্ট্র গঠনে ফিলিস্তিনিদের সব ধরনের অধিকার প্রতিষ্ঠায় জর্দানের সর্বাত্মক সমর্থন আছে।’

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে প্রথম আরব নেতার সঙ্গে সাক্ষাত করে জর্দানের রাজা আবদুল্লাহকে নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট বাইডেন জানান, তিনি দ্বি-রাষ্ট্রীয় সমাধানের ভিত্তিতে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিন সংঘাত নিরসনে সহায়তা করবেন।

কূটনীতিবিদরা মনে করেন, জর্দানের রাজা আবদুল্লাহ যুক্তরাষ্ট্রের শক্তিশালী মিত্র হিসেবে পরিচিত। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে জো বাইডেন বিজয়ী হলে প্রথম আরব নেতা হিসেবে জর্দানের বাদশাহ আবদুল্লাহ তাঁকে অভিনন্দন জানান।

এদিকে পশ্চিম তীরের বসতি স্থাপনের সুযোগ দিয়ে ট্রাম্প প্রশাসনের শান্তি পরিকল্পনা জর্দানের অস্তিত্বের জন্য হুমকি হয়ে দাড়িয়েছে। তাছাড়া আরব-ইসরায়েল শান্তি পরিকল্পনা স্থাপনে নেতানিয়াহুর কঠোর নীতিমালার সমর্থন করে যা জর্দানকে অস্বস্তিতে ফেলে দেয়।

১৯৬৭ সালের আরব-ইসরায়েলের যুদ্ধে জর্দান পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেম হারায়। তাছাড়া প্রায় সাত মিলিয়নের বেশি ফিলিস্তিনি শরনার্থীদের আশ্রয় দিতে হয় জর্দানকে।

সূত্র : রয়টার্স

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা