kalerkantho

সোমবার। ১৭ জুন ২০১৯। ৩ আষাঢ় ১৪২৬। ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

ব্যক্তিত্ব

১৭ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্যক্তিত্ব

বুলবুল চৌধুরী

নৃত্যশিল্পী ও লেখক বুলবুল চৌধুরীর জন্ম চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় ১৯১৯ সালের ১ জানুয়ারি। তাঁর প্রকৃত নাম রশীদ আহমদ চৌধুরী। তাঁর বাবার নাম মোহাম্মদ আজমউল্লাহ। ১৯২৪ সালে তিনি হাওড়া প্রাইমারি স্কুলে ভর্তি হন। তারপর বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নের পর ১৯৪৩ সালে তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ ডিগ্রি লাভ করেন। শৈশব থেকেই নাচ, গান, ছবি আঁকা এবং গল্প-কবিতা লেখার প্রতি তাঁর প্রবল আগ্রহ জাগে। ১৯৩৪ সালে মানিকগঞ্জ হাই স্কুলে অনুষ্ঠিত চিত্র প্রদর্শনীতে তাঁর আঁকা ছবি প্রথম পুরস্কার লাভ করে। নৃত্যশিল্পী হিসেবেই মুখ্যত তিনি খ্যাতি অর্জন করেন। ছাত্রাবস্থায় প্রেসিডেন্সি কলেজের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে নৃত্যশিল্পী হিসেবে তিনি প্রতিষ্ঠা লাভ করেন। ১৯৩৬ সালে তিনি সাধনা বসুর সঙ্গে যৌথভাবে পরিবেশন করেন রবীন্দ্রনাথের নৃত্যনাট্য কচ ও দেবযানী। এটি ছিল তাঁর শিল্পীজীবনের মাইলফলক। ১৯৩৭ সালে ওরিয়েন্টাল ফাইন আর্টস অ্যাসোসিয়েশন প্রতিষ্ঠায় তিনি অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন। নাচের সঙ্গে অভিনয় যোগ করে সুনির্দিষ্ট বক্তব্য পরিস্ফুট করে তোলাই ছিল তাঁর নৃত্যনাট্যের প্রধান বৈশিষ্ট্য। তাঁর নৃত্যনাট্যের বিষয়বস্তু ছিল বিচিত্র ধরনের এবং অসাম্প্রদায়িক চেতনাসম্পন্ন। ১৯৪০ সালে তিনি নাচের দল নিয়ে ঢাকায় এসে কয়েকটি নৃত্যনাট্য পরিবেশন করে দর্শকদের মুগ্ধ করেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় তিনি চট্টগ্রামে আসেন এবং কয়েকটি চাকরি করেন। তিনি পৃথিবীর বিভিন্ন শহরে নৃত্যনাট্য পরিবেশন করেছেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পটভূমিতে তিনি প্রাচী (১৯৪২) শিরোনামে একটি উপন্যাস রচনা করেন। ১৯৫৪ সালের ১৭ মে কলকাতায় তিনি মারা যান।

[বাংলাপিডিয়া অবলম্বনে]

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা