kalerkantho

সোমবার। ১৭ জুন ২০১৯। ৩ আষাঢ় ১৪২৬। ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

ব্যক্তিত্ব

১৪ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্যক্তিত্ব

শওকত ওসমান

কথাসাহিত্যিক ও প্রাবন্ধিক শওকত ওসমানের জন্ম পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলায় ২ জানুয়ারি ১৯১৭ সালে। তাঁর প্রকৃত নাম শেখ আজিজুর রহমান। তিনি ১৯৩৩ সালে কলকাতার আলিয়া মাদরাসা থেকে প্রবেশিকা ও ১৯৩৬ সালে সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ থেকে আইএ পাস করেন। ১৯৩৯ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় বিএ এবং ১৯৪১ সালে এমএ পাস করে তিনি গভর্নমেন্ট কমার্শিয়াল কলেজে লেকচারার পদে নিযুক্ত হন। ১৯৪৭ সালে চট্টগ্রাম কলেজ অব কমার্সে যোগ দেন। ১৯৫৯ সালে ঢাকা কলেজে যোগ দেন, ১৯৭২ সালে স্বেচ্ছায় অবসরে যান। চাকরিজীবনে তিনি কিছুদিন কৃষক পত্রিকায় সাংবাদিকতা করেন। উপন্যাস ও গল্প রচয়িতা হিসেবেই তাঁর মুখ্য পরিচয়; তবে প্রবন্ধ, নাটক, রম্যরচনা, স্মৃতিকথা ও শিশুতোষ গ্রন্থও রচনা করেছেন। বিদেশি ভাষার অনেক উপন্যাস, ছোটগল্প ও নাটক তিনি বাংলায় অনুবাদ করেছেন। ‘জননী’, ‘ক্রীতদাসের হাসি’, ‘জাহান্নাম হইতে বিদায়’, ‘ঈশ্বরের প্রতিদ্বন্দ্বী’ তাঁর উল্লেখযোগ্য রচনা। ‘জননী’ ও ‘ক্রীতদাসের হাসি’ উপন্যাস দুটি তাঁকে খ্যাতিমান করেছে। ‘জননী’ উপন্যাসে গ্রাম ও নগরজীবনের সংঘাতে একটি পরিবারের বিপর্যস্ত অবস্থার বিবরণ আছে। আর ‘ক্রীতদাসের হাসি’তে রাজনৈতিক জীবনের কিছু অন্ধকার দিক উন্মোচিত হয়েছে। প্রাচীন কাহিনি, ঘটনা ও চরিত্রের রূপকে লেখক সমকালীন রাজনীতিতে স্বৈরাচারী চরিত্র ও নিপীড়নের চিত্র তুলে ধরেছেন। তিনি বাংলা একাডেমি পুরস্কার, আদমজী সাহিত্য পুরস্কার, পাকিস্তান সরকারের প্রেসিডেন্ট পুরস্কার, স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার, একুশে পদকসহ নানা পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। ১৯৯৮ সালের ১৪ মে ঢাকায় তাঁর মৃত্যু হয়।

[বাংলাপিডিয়া অবলম্বনে]

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা