kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৩ মে ২০১৯। ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৭ রমজান ১৪৪০

ব্যক্তিত্ব

২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্যক্তিত্ব

বেলাল চৌধুরী

কবি, সাংবাদিক ও অনুবাদক বেলাল চৌধুরীর জন্ম ফেনী জেলার শর্শদি গ্রামে ১২ নভেম্বর ১৯৩৮ সালে। তাঁর বাবার নাম রফিকউদ্দিন আহমাদ চৌধুরী এবং মা মুনীর আখতার খাতুন চৌধুরানী। তিনি বিংশ শতাব্দীর দ্বিতীয়ার্ধে আবির্ভূত একজন আধুনিক বাঙালি কবি, যাঁকে ষাট দশকের সঙ্গে চিহ্নিত করা হয়। তিনি সাংবাদিক, প্রাবন্ধিক, অনুবাদক এবং সম্পাদক হিসেবেও খ্যাতিমান। তিনি দীর্ঘকাল ঢাকাস্থ ভারতীয় দূতাবাস কর্তৃক প্রকাশিত ভারত বিচিত্রা পত্রিকার সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। এ ছাড়া তিনি সাপ্তাহিক পল্লীবার্তা, কৃত্তিবাস, সচিত্র সন্ধানী ইত্যাদি পত্রিকায় নানা পদে কাজ করেছেন। তাঁর উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ—কবিতা : নিষাদ প্রদেশে (১৯৬৪), বেলাল চৌধুরীর কবিতা (১৯৬৮), আত্মপ্রতিকৃতি, স্থিরজীবন ও নিসর্গ (১৯৭৫), স্বপ্নবন্দী (১৯৮৪), সেলাই করা ছায়া (১৯৮৫), কবিতার কমলবনে (১৯৯২), যাবজ্জীবন সশ্রম উল্লাসে (১৯৯৮), বত্রিশ নম্বর (১৯৯৮)। প্রবন্ধ—গবেষণা : কাগজে-কলমে (১৯৯৭), স্ফুলিঙ্গ থেকে দাবানল (২০০১)। ভ্রমণ কাহিনি : সূর্যকরোজ্জ্বল বনভূমি (১৯৬৪)। শিশুসাহিত্য : সবুজ ভাষার ছড়া (ছড়া, ১৯৮১), বত্রিশ দাঁত (১৯৮১), সাড়ে বত্রিশ ভাজা। সম্পাদনা : বিশ্বনাগরিক গ্যেটে; জলের ভেতরে চাঁদ ও অন্যান্য গল্প, লঙ্গরখানা; পদাবলী কবিতা সংকলন। অনুবাদ : মৃত্যুর কড়ানাড়া, ত্রান্তোরা (নাটক)। তিনি বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার (১৯৮৪), নীহাররঞ্জন পুরস্কার (১৯৯২), অলক্ত সাহিত্য পুরস্কার (১৯৯৭) ছাড়াও ২০১৪ সালে পেয়েছেন একুশে পদক। তিনি ২০১৮ সালের ২৪ এপ্রিল মৃত্যুবরণ করেন।

[উইকিপিডিয়া অবলম্বনে]

মন্তব্য